আরাফা দিবস মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে মানবজাতির প্রতি সর্বশ্রেষ্ঠ অফার

নিঃসন্দেহে আরাফাত দিবস মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে মানব জাতির প্রতি বছরের শ্রেষ্ঠ অফার। অধিকাংশ আলেমের মতে, এটি বছরের শ্রেষ্ঠ দিন। হাজিগণ এ দিন ঐতিহাসিক আরাফার ময়দানে উপস্থিত থাকবেন-যা হজের একটি রোকন। এ দিন আল্লাহ নিচের আসমানে নেমে এসে আরাফায় উপস্থিত হাজিদেরকে নিয়ে গর্ব করবেন এবং এত বিশাল পরিমাণ হাজিকে জাহান্নামের আগুণ থেকে মুক্তি ঘোষণা করবেন …

Read more

Share:

মুসলিমদের জন্য তুলসী পাতা ব্যবহারের বিধান এবং এর অভাবনীয় সব উপকারিতা

প্রশ্ন: কাশির ঔষধে উপাদান হিসাবে তুলসী পাতা থাকলে সে ঔষধ কি মুসলিমরা খেতে পারবে? কেননা আমরা জানি, হিন্দুরা তুলসী গাছের পূজা করে। দয়া করে এ বিষয়ে জানাবেন ইনশাআল্লাহ। উত্তর: তুলসী অত্যন্ত উপকারী একটি সুগন্ধযুক্ত ভেষজ বা ঔষধি গুণসম্পন্ন গাছ। আল্লাহ তায়ালা এতে মানবজাতির জন্য অনেক উপকার দিয়েছেন। অতএব স্বাস্থ্য রক্ষা বা চিকিৎসার ক্ষেত্রে এই পাতার …

Read more

Share:

একজন সাবলম্বী লোকের পক্ষ থেকে কি অন্য একজন কুরবানি দিতে পারবে

উত্তর: হ্যাঁ, কেউ ইচ্ছা করলে আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে অন্য কোন জীবিত ব্যক্তির পক্ষ থেকে কুরবানি দিতে পারবে। যার পক্ষ থেকে কুরবানি দেওয়া হবে সে চাই স্বাবলম্বী হোক অথবা হতদরিদ্র হোক। ‌তবে শর্ত হল, তার সম্মতিক্রমে হতে হবে। তাহলে যার পক্ষ থেকে কুরবানি করা হবে, সে কুরবানির সওয়াব পাবে আর যে তার পক্ষ থেকে কুরবানি দিবে …

Read more

Share:

অনলাইনে কুরবানির জন্য গরু-ছাগল ইত্যাদি কেনা কতটুকু শরিয়ত সম্মত

প্রশ্ন: অনলাইনে কুরবানির জন্য গরু-ছাগল ইত্যাদি কেনা কতটুকু শরিয়ত সম্মত? এ ক্ষেত্রে সকলের জন্য কিছু পরামর্শ কামনা করছি। উত্তর: কুরবানির গরু-ছাগল ইত্যাদি বিক্রয়ের যদি পরীক্ষিত ও নির্ভরযোগ্য কোন অ্যাপ বা ওয়েব সাইট থাকে এবং তাদের দেয়া শর্তাবলীতে শরিয়া পরিপন্থী কোন কিছু না থাকে তাহলে সেখান থেকে অনলাইনে কুরবানির জন্য গরু-ছাগল ইত্যাদি ক্রয় করতে কোন আপত্তি …

Read more

Share:

হারাম মাস বলতে কী বুঝায় এবং হারাম মাস কয়টি ও কী কী এবং এগুলোকে কেন হারাম মাস বলা হয়

উত্তর: আল্লাহ তাআলা বলেন, إِنَّ عِدَّةَ الشُّهُورِ عِندَ اللَّهِ اثْنَا عَشَرَ شَهْرًا فِي كِتَابِ اللَّهِ يَوْمَ خَلَقَ السَّمَاوَاتِ وَالْأَرْضَ مِنْهَا أَرْبَعَةٌ حُرُمٌ ۚ ذَٰلِكَ الدِّينُ الْقَيِّمُ ۚ فَلَا تَظْلِمُوا فِيهِنَّ أَنفُسَكُمْۚ “প্রকৃতপক্ষে আল্লাহর কাছে মাসের সংখ্যা ১২টি। যা আল্লাহর কিতাব অনুযায়ী সেই দিন থেকে চালু আছে যে দিন তিনি আকাশমণ্ডল ও পৃথিবী সৃষ্টি করেছিলেন। এর …

Read more

Share:

জিলহজ মাস শুরু হলে যে ব্যক্তি কুরবানি করতে চায় তার জন্য কুরবানি হওয়া পর্যন্ত চুল, নখ ইত্যাদি কাটা হারাম

জিলহজ মাস শুরু হলে যে ব্যক্তি কুরবানি করতে চায় তার জন্য শরীরের অতিরিক্ত পশম (যেমন: মাথার চুল, নাভির নিচের বা বগলের পশম ইত্যাদি) কাটা জায়েজ নাই। কারণ উম্মে সালামা রা. হতে বর্ণিত। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, إذا دخل شهر ذي الحجة وأراد أن يضحي فلا يأخذ من شعره ولا من أظفاره شيئاً “জিলহজ …

Read more

Share:

জিলহজ মাসের প্রথম দশ দিনের আমল এবং কুরবানির মাসায়েল

ভূমিকা: সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর জন্য, যিনি আমাদের জন্য ইসলাম ধর্মকে পরিপূর্ণ করে দিয়েছেন। দরূদ ও শান্তির অবিরাম ধারা বর্ষিত হোক নবীকুল শিরোমণি মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এবং তাঁর পবিত্র বংশধর ও সম্মানিত সাথীদের উপর। রসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেন, “আমার উম্মতের বয়স ষাট থেকে সত্তর বছরের মাঝখানে”। (তিরমিজী) অন্যান্য নবীর উম্মতদের তুলনায় উম্মতে …

Read more

Share:

জিলহজের প্রথম দশকে যেসব আমল করা মোস্তাহাব

প্রশ্ন: ইবাদতের মৌসুমগুলো আমরা কীভাবে গ্রহণ করব? উত্তর: ▪️ ১) প্রত্যেক মুসলমানের কর্তব্য, ইবাদতের মৌসুমগুলোতে খাঁটি ভাবে তওবা করা এবং পাপাচার ও আল্লাহর নাফরমানি থেকে বিরত থাকা। কারণ পাপাচার মানুষকে আল্লাহর অনুগ্রহ থেকে শুধু বঞ্চিতই রাখে না বরং আল্লাহ ও তার অন্তরের মাঝে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে দেয়। ▪️ ২) আরও কর্তব্য হল, আল্লাহ তাআলাকে খুশি …

Read more

Share:

ভেষজ বা হারবাল চিকিৎসা কখন জায়েজ আর কখন নাজায়েজ

প্রশ্ন: হাত-পা ভেঙ্গে গেলে কবিরাজ গাছগাছালির মিশ্রণ থেকে তৈরিকৃত ওষুধ ভাঙ্গা স্থানে প্রলেপ দেয় বা আহত স্থান ব্যান্ডেজ করে। এটা কি শিরক হবে? উত্তর: চিকিৎসাবিজ্ঞানে ভেষজ বা উদ্ভিজ্জ প্রাকৃতিক উপাদানের ব্যবহার সুপ্রাচীনকালের। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, বিশ্বের ৮০ শতাংশ মানুষ রোগবালাইয়ের প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে নানা ধরনের হারবাল বা প্রাকৃতিক ওষুধ ব্যবহার করে থাকে। শুধু তা–ই …

Read more

Share:

সংক্ষিপ্তভাবে সা. লিখার বিধান

প্রশ্ন: সংক্ষিপ্তভাবে (সা.) লিখার বিধান কি? উত্তর: প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর প্রতি দরুদ তথা সালাত ও সালাম পাঠ করা অত্যন্ত ফজিলত পূর্ণ আমল। এটি আল্লাহর নির্দেশ। যেমন: ◍ আল্লাহ তাআলা বলেন, إِنَّ اللَّهَ وَمَلَائِكَتَهُ يُصَلُّونَ عَلَى النَّبِيِّ ۚ يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا صَلُّوا عَلَيْهِ وَسَلِّمُوا تَسْلِيمًا ‎”আল্লাহ ও তাঁর ফেরেশতাগণ নবীর প্রতি …

Read more

Share: