জান্নাতি শারাব/মদের বিবরণ

প্রশ্ন: জান্নাতে কি ইয়াবা, ফেন্সিডিল, কোকেন,গাঁজা এ সমস্ত হারাম জিনিসও পাওয়া যাবে?
উত্তর:
আল্লাহ তাআলা দুনিয়ার মদ, ফেন্সিডিল, গাজা , হিরোইন, ইয়াবা ইত্যাদি সকল প্রকার নেশাদার বস্তু হারাম করেছেন। কেননা তা মানব জীবনকে সর্ব দিক দিয়ে অচল ও পঙ্গু করে দেয়ার প্রধান উপাদান। মানুষের শরীর ও স্বাস্থ্যের জন্য এগুলো এত বেশি ক্ষতিকর যা কল্পনারও বাইরে। নেশাদার বস্তু ও মদ্যপানকারীর মানসিক স্বাস্থ্যেরও বেশ অবনতি ঘটে। বিষণ্ণতা, দুশ্চিন্তা, মানসিক অস্থিরতা, অনিদ্রা, কাজে একাগ্রতার অভাব সব কিছু মিলিয়ে একজন সুরাসক্ত মানুষ মনের দিক থেকে খুবই অশান্তিতে থাকেন। এতে মাথা ব্যথা, পেট ব্যথা, পাগলামি-মাতলামি সহ শরীরে অসংখ্য রোগ-ব্যাধি সৃষ্টি করে। কিন্তু আল্লাহ তাআলা জান্নাতে জান্নাতবাসীদের জন্য যে শারাবের ব্যবস্থা রেখেছেন যা এ সব সমস্যা থেকে মুক্ত। তা সুস্বাদু, শ্বেত-শুভ্র, পবিত্র ও পরিচ্ছন্ন। তাতে মাতলামি সৃষ্টি হবে না, মাথা ব্যথা হবে না, যাতে ক্ষতির ন্যূনতম সম্ভাবনা নাই।

আল্লাহ তাআলা কুরআনের বিভিন্ন জায়গায় জান্নাতি শারাব বা মদের বিবরণ দিয়েছেন এভাবে:
আল্লাহ বলেন,
يُطَافُ عَلَيْهِم بِكَأْسٍ مِّن مَّعِينٍ – بَيْضَاءَ لَذَّةٍ لِّلشَّارِبِينَ لَا فِيهَا غَوْلٌ وَلَا هُمْ عَنْهَا يُنزَفُونَ
“তাদেরকে ঘুরে ফিরে পরিবেশন করা হবে স্বচ্ছ পানপাত্র। সু শুভ্র, যা পানকারীদের জন্যে সুস্বাদু। তাতে মাথা ব্যথার উপাদান নেই এবং তারা তা পান করে মাতালও হবে না।” (সূরা সাফফাত: ৪৫-৪৭)

وَأَنْهَارٌ مِّنْ خَمْرٍ لَّذَّةٍ لِّلشَّارِبِينَ
“পানকারীদের জন্যে সুস্বাদু শরাবের নহর।” (সূরা মুহাম্মদ: ১৫)

يَطُوفُ عَلَيْهِمْ وِلْدَانٌ مُّخَلَّدُونَ- بِأَكْوَابٍ وَأَبَارِيقَ وَكَأْسٍ مِّن مَّعِينٍ – لَّا يُصَدَّعُونَ عَنْهَا وَلَا يُنزِفُونَ
“তাদের কাছে ঘোরাফেরা করবে চির কিশোরেরা। পানপাত্র কুঁজা ও খাঁটি সূরা পূর্ণ পেয়ালা হাতে নিয়ে, যা পান করলে তাদের মাথাব্যথা হবে না এবং তারা বিকারগ্রস্তও হবে না।” (সূরা ওয়াকিয়া: ১৭-১৯)

ইবনে আব্বাস রা. এই আয়াতের ব্যাখ্যায় বলেছেন,
في الخمر أربع خصال: السكر، والصداع، والقيء، والبول، فذكر الله خمر الجنة، ونزهها عن هذه الخصال
“মদের চারটি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। যথা: মাতলামি, মাথাব্যথা, বমি ও পেশাব। আল্লাহ তাআলা জান্নাতের মদের কথা উল্লেখ করেছেন। কিন্তু তিনি জান্নাতের মদকে এসব বৈশিষ্ট্য থেকে মুক্ত করেছেন।” (তাফসিরে ইবনে কাসির)
يُسْقَوْنَ مِن رَّحِيقٍ مَّخْتُومٍ – خِتَامُهُ مِسْكٌ ۚ وَفِي ذَٰلِكَ فَلْيَتَنَافَسِ الْمُتَنَافِسُونَ – وَمِزَاجُهُ مِن تَسْنِيمٍ
“তাদেরকে মোহর করা বিশুদ্ধ পানীয় পান করানো হবে। তার মোহর হবে কস্তূরী। এ বিষয়ে প্রতিযোগীদের প্রতিযোগিতা করা উচিত। তার মিশ্রণ হবে তসনীমের পানি।” (সূরা মুতাফফিফীন: ২৫-২৭)

সুতরাং কেউ যদি দুনিয়ার জঘন্য ও ক্ষতিকর মদ, গাজা, ফেন্সিডিল, হেরোইন, কোকেন, ইয়াবা ইত্যাদি নেশাদার বস্তু পরিত্যাগ করে এবং আল্লাহর দেখানে রাস্তায় চলে আল্লাহ তাআলা তাকে জান্নাতে স্বচ্ছ, শ্বেত-শুভ্র, সুস্বাদু, পবিত্র, পরি তৃপ্তিদায়ক, স্বাস্থ্য সম্মত ও সকল প্রকার অনিষ্ট মুক্ত শারাব পান করাবেন।
আল্লাহ তাআলা আমাদের জান্নাতের চিরস্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে কবুল করে নিন। আমিন।
▬▬▬◍❂◍▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।