আল্লাহর নাম সত্তার‌ প্রমাণিত না হওয়ায় আব্দুস সাত্তার নাম রাখা উচিত নয়

আমাদের সমাজে‌ আব্দুস সাত্তার নামটি সুপরিচিত। আমাদের সম্মানিত শায়েখ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ তার এক বক্তৃতায় বাচ্চাদের কেমন নাম রাখা উচিত সে বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে ‘আব্দুস সাত্তার’ নাম রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। (আল্লাহ শায়খের ভুল ত্রুটিগুলো মার্জনা করুন। আমিন) অথচ “সাত্তার” নামে আল্লাহর কোন নাম বিশুদ্ধ সূত্রে প্রমাণিত নয়।

🔸 এ ব্যাপারে বিজ্ঞ আলেমদের কয়েকটি ফতোয়া উল্লেখ করা হলো:

১. সৌদি আরবের সাবেক গ্র্যান্ড মুফতি বিশ্ব বরেণ্য আলেম আল্লামা আব্দুল আজিজ বিন বায রহ. বলেন,
لا أعلم في ذلك ما يدل على أن الستار من أسمائه، وإن كان يستعمله الناس، لكن لا أعلم في ذلك حديثًا صحيحًا عن النبي ﷺ، وإنما جاء الستير
“এমন কোন প্রমাণ আমি জানি না যার দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, সাত্তার আল্লার নাম। যদিও মানুষ তা ব্যবহার করে। কিন্তু এ মর্মে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে বিশুদ্ধ কোন হাদিস জানা নেই। তবে সিত্তীর নামটি হাদিসে এসেছে।” [Binbaz]

২. আরেক বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন শাইখ আব্দুল আজিজ আর রাজেহি কে জিজ্ঞাসা করা হয় যে, সাত্তার আল্লাহর সুন্দর নাম সমূহের অন্তর্ভূক্ত কী?

উত্তরে তিনি বলেন,

الستار لا أعلم أنه من أسماء الله ، ولكن من أسماء الله : “الستير” ، كما جاء في الحديث : ( إن الله حيي ستير ) ، أما الستار فلا أعلم أنه من أسماء الله
(نقلاً : عن شريط شرح الإبانة الصغرى لابن بطة)
“সাত্তার আল্লাহর নাম সমূহের অন্তর্ভুক্ত বলে জানা নেই। কিন্তু আল্লাহর অন্যতম একটি নাম হল, সিত্তীর। যেমন: হাদিসে এসেছে,
إِنَّ اللَّهَ عَزَّ وَجَلَّ حَيِيٌّ سِتِّيرٌ
“আল্লাহ তাআলা লজ্জাশীল ও (বান্দার পাপরাশী) আড়ালকারী ।” কিন্তু সাত্তার আল্লাহর নাম বলে জানা নাই।”

৩. বিশ্ব বিখ্যাত ফতোয়া বিষয়ক ওয়েবসাইট ইসলাম ওয়েব-এ বলা হয়েছে,
فإن أسماء الله تعالى توقيفية فلا يسمى الله تعالى إلا بما سمى به نفسه في محكم كتابه أو على لسان نبيه صلى الله عليه وسلم، واسم الستار لم يرد في كتاب الله تعالى ولا في سنة رسوله صلى الله عليه وسلم، ولذلك فهو ليس من أسماء الله تعالى.
وعليه، فإنه لا يجوز للمسلم أن يتسمى بعبد الستار
“আল্লাহর নামসমূহ তওকিফি তথা দলিল নির্ভর। অতএব আল্লাহর এমন কোন নাম নির্ধারণ করা যাবে না যা তিনি তার প্রজ্ঞাময় কিতাব অথবা নবীর জবানে (হাদিসে) নামকরণ করেননি। আর সাত্তার নামটি আল্লাহর কিতাবেও আসেনি, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সুন্নাতেও আসেনি। এজন্যে এটি আল্লার নামসমূহের অন্তর্ভুক্ত নয়।
অতএব কোন মুসলিমের ‘আব্দুস সাত্তার’ নাম রাখা জায়েজ নয়।” [Islamweb]

সুতরাং অতএব কারো নাম আব্দুস সাত্তার রাখা উচিত নয়। কেননা এই নামটি আল্লাহর গুণবাচক নাম হিসেবে কোন হাদিস প্রমাণিত নয়। তবে আব্দুস সাত্তার নাম না রেখে আব্দুস সিত্তীর (যদিও সাত্তার এবং সিত্তীর উভয়টি সমার্থক বোধক)। অথবা ‘আব্দ” সংযুক্ত ছাড়া শুধু “সাত্তার” রাখা যেতে পারে।

▪️সিত্তীর নামের মর্মার্থ:

ইমাম বায়হাকি বলেন,

” ستير ” يعني أنه ساتر يستر على عباده كثيرا ، ولا يفضحهم في المشاهد .
كذلك يحب من عباده الستر على أنفسهم ، واجتناب ما يشينهم ، والله أعلم

“সিত্তীর অর্থ: আল্লাহ মানুষের প্রচুর পরিমাণ (দোষত্রুটি ও গুনাহ) ঢেকে রাখেন। সেগুলোকে জনসম্মুখে প্রকাশ করে দিয়ে তাদেরকে অপদস্ত করে না। অনুরূপভাবে তিনি এটাও পছন্দ করেন যে, বান্দাগণ কোনও পাপকর্ম করে ফেললে তা যেন ঢেকে রাখে এবং নোংরা ও অশালীন কাজ থেকে দূরে থাকে। আল্লাহু সবচেয়ে বেশি জানেন।” [আল আসমা ওয়াসিফাত, পৃষ্ঠা নাম্বার ১৪৮]

▪️শব্দটির উচ্চারণ:

শব্দটির উচ্চারণ, سِتِّيْر (সিত্তীর)। তবে سَتِيْر (সাতীর)ও সঠিক। অর্থাৎ সিত্তীর বা সাতীর উভয়টাই সঠিক। এর অর্থ, যিনি তার বান্দাদেরকে অপদস্থ করেন না এবং তাদের অপকর্মগুলো ঢেকে রাখেন।” [আব্দুল হক দেহলভি, লুময়াতুত তাহকিক ফী শারহে মিশকাতিল মাসাবিহ, ২/১৭৯]
قال عبد الحق الدِّهْلوي في “لمعات التنقيح في شرح مشكاة المصابيح” (2/ 178، 179): (ستير) بكسر السين على وزن الصِّديق بالتشديد، وصُحِّح أيضًا بفتح السين والتخفيف (فعيل) بمعنى (فاعل)، أي: لا يفضح عباده، ويستر قبائحهم.
— সাত্তার (الستار) এর অনুরূপ সাতের (الساتر) নামটিও প্রমাণিত নয়।

মোটকথা, আল্লার নাম ‘সাত্তার’ প্রমাণিত নয়। অতএব কারো নাম ‘আব্দুস সাত্তার’ রাখা উচিত নয়। কারো এমন নাম থাকলে যে কোন ভালো অর্থবোধক নাম দ্বারা পরিবর্তন করা উত্তম। অথবা নামের শুরু থেকে ‘আব্দ’ শব্দ বাদ দিয়ে শুধু ‘সাত্তার’ বলা যেতে পারে। আল্লাহ তওফিক দান করুন আমিন। আল্লাহু আলম।
▬▬▬▬✿◈✿▬▬▬▬
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।

Share On Social Media