কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

২১ বার বিসমিল্লাহ রাহমানির রাহিম পাঠের ফজিলত

প্রশ্ন: ২১ বার বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম পড়ে ঘুমালে নাকি প্রতি নিশ্বাসে নেকি লিখা হয়। এটা কি সত্য?
উত্তর:
এটি বাতিল ও ভিত্তিহীন কথা।
এ প্রসঙ্গে সৌদি আরবে সাবেক গ্রান্ড মুফতি বিশ্ববিখ্যাত আলেম আল্লামা আব্দুল্লাহ বিন বায রহ. বলেন,
إذا قرأت إحدى وعشرين مرة عند النوم حصل بها كذا وكذا، وإذا كتبت مائة وثلاثين مرة حصل بها كذا وكذا إلى غير ذلك كل هذه باطلة لا أساس لها، ولا صحة لها، بل هذا مما افتراه المفترون وكذبه الكذابون فلا يعول على ذلك ولا يلتفت إلى ذلك،
“কেউ যদি ঘুমের সময় ২১ বার বিসমিল্লাহ পড়ে তাহলে এই এই হবে, কেউ যদি তা ১৩০ বার লেখে তাহলে তার এই হবে এই হবে….এগুলো সব বাতিল ও ভিত্তিহীন কথা। মোটেও সহিহ নয়। এগুলো হল, মিথ্যারোপ কারীদের মিথ্যারোপ এবং মিথ্যুকদের মিথ্যাচার।
সুতরাং এ সমস্ত কথাবার্তার দিকে ভ্রুক্ষেপ করা যাবে না।” (উৎস: শাইখের অফিসিয়াল ওয়েব সাইট )
তবে ঘুমের পূর্বে যে সকল আমল রয়েছে সেগুলো করলে ইনশাআল্লাহ আল্লাহ তাআলা তাকে বিপদাপদ থেকে রক্ষা করবেন এবং অনেক সওয়াব অর্জিত হবে ইনশাআল্লাহ। যেমন:
সুরা ইখলাস, নাস ও ফালাক পড়ে শরীরে ফুঁ দেওয়া, আয়াতুল কুরসি, সুরা বাকারার শেষ দুই আয়াত, সূরা মুলক, সূরা কাফিরূন, ৩৩ বার সুবহানাল্লাহ, ৩৩ বার আল হামদুলিল্লাহ, ৩৪ বার আল্লাহু আকবার, তারপর ঘুমের দুআ সমূহ পড়ার পর ঘুমানো।
আল্লাহু আলাম।

উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স, সৌদি আরব।

Share This Post