স্ত্রী, পরিবার ও নিকটাত্মীয়দের সাথে সুন্দর আচরণ এবং একটি প্রসিদ্ধ হাদিসের ভুল অর্থ ও ব্যাখ্যা

নিম্নোক্ত হাদিসটি আমাদের সমাজে যথেষ্ট পরিচিত: প্রখ্যাত সাহাবি আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,
خَيْرُكُمْ خَيْرُكُمْ لِأَهْلِهِ، وَأَنَا خَيْرُكُمْ لِأَهْلِي
“তোমাদের মধ্যে সে ব্যক্তিই সবচেয়ে ভালো যে তার পরিবারের নিকট সবচেয়ে ভালো আর আমি তোমাদের মধ্যে আমার পরিবারের নিকট সবচেয়ে ভালো।” [ইবনে মাজহ: হাদিস নং ১৯৭৭, তিরমিযী: হাদিস নং ৩৮৯৫, শায়েখ আলবানিসহ অনেক মুহাদ্দিস এটিকে সহিহ বলেছেন। সহিহ লিগাইরিহি, সহিহ তিরমিযি, হা/৩৮৯৬]

উপরোক্ত হাদিসটি আমাদের কাছে যথেষ্ট পরিচিত। কিন্তু অধিকাংশ মানুষের কাছে তার ভুল অর্থ প্রচলিত। আর তা হল, উক্ত হাদিসকে কেবল স্ত্রীর সাথে খাস করা।‌ অর্থাৎ এভাবে অর্থ করা যে, “তোমাদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো ওই ব্যক্তি যে তার স্ত্রীর কাছে ভালো…।” (অধিকাংশ অনুবাদক এমনটি অর্থ করেছেন) কিন্তু তা সঠিক নয়। বরং ‘আহল‌’ শব্দের সঠিক অর্থ হলো, ‘পরিবার’ (শুধু স্ত্রী নয়)। আর স্ত্রী, মা-বাবা, সন্তান-সন্ততি, ভাই-বোন ইত্যাদি সকলেই পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। কিছু আলেমের মতে, রক্ত সম্পর্কীয় আত্মীয়-স্বজন বা নিকটাত্মীয়গণও এর মধ্যে শামিল।

🔸নিম্নে উক্ত হাদিসের ব্যাপারে বিজ্ঞ আলেমদের ব্যাখ্যা পেশ করা হলো:

◾সুনানে তিরমিজির অনবদ্য ব্যাখ্যা গ্রন্থ তুহফাতুল আহওয়াজিতে এই হাদিসের ব্যাখায় বলা হয়েছে,
لعياله، وذوي رحمه
“(সবচেয়ে উত্তম হলো সে ব্যক্তি যে), তার পরিবার-পরিজন এবং রক্ত সম্পর্কীয় আত্মীয়-স্বজনের নিকট ভালো।”
কেউ কেউ বলেন,
لأزواجه وأقاربه
“স্ত্রী ও নিকাটাত্মীয়গণের নিকট ভালো। কারণ এ হাদিসটি সুন্দর আচরণের অর্থ বহন করে। রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সাধারণভাবে সকল মানুষের মধ্যে শ্রেষ্ঠ ছিলেন এবং সবচেয়ে সুন্দর আচরণের অধিকারী ছিলেন। তিনি ছিলেন, মহান চরিত্রের উপরে প্রতিষ্ঠিত।” [তুহফাতুল আহওয়াজি]

◾সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি বিশ্ব নন্দিত আলেমে দীন শায়েখ আব্দুল্লাহ বিন বায রহ. এই হাদিসের ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বলেন,
أهله: زوجته، وأمه، وأبوه، وأولاده، كلهم أهله، يعني: يحسن إليهم، وينفق عليهم، أفضل من الأجانب، والبعيدين.
“আহল অর্থ: স্ত্রী, মা, বাবা ও সন্তান-সন্ততি। এরা সবাই পরিবারভূক্ত। হাদিসটির অর্থ হল, যে ব্যক্তি এদের প্রতি দয়াসুলভ আচরণ করে এবং তাদের জন্য অর্থ খরচ করে সে উত্তম অনাত্মীয় এবং দূরবর্তী লোকদের থেকে।” [binbaz]

◾বর্তমান শতকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ফকিহ আল্লামা শাইখ মুহম্মদ বিন সালিহ আল উসাইমিন রহ. বলেন,
فإذا كان فيك خير؛ فاجعله عند أقرب الناس لك وليكن أول المستفيدين من هذا الخير
“অতএব যদি তোমার মধ্যে ভালো কিছু থাকে তাহলে তা তোমার কাছের মানুষদেরকে দাও। এই কল্যাণ থেকে তারাই সর্বপ্রথম উপকৃত হোক।”

◾তিনি আরো বলেন,

ومن فوائد هذا الحديث: أنه ينبغي للإنسان أن يقتدي برسول الله صلى الله عليه وسلم في هذا، بحيث يكون مع أهله لينًا هيّنا أليفا لا يبعد عنهم ولا يطيل البعد

“এই হাদিসের অন্যতম একটি শিক্ষা হলো, একজন ব্যক্তির উচিত, আল্লাহর রসূলের আদর্শ অনুসরণ করা, যাতে সে তার পরিবারের সাথে নম্র, সহজ-সরল এবং বন্ধুত্বপূর্ণ হতে পারেন। যে তাদের থেকে বিচ্ছিন্ন থাকবে না বা দীর্ঘ সময় দূরে থাকবে না।” [শারহে বুলুগুল মারাম-alathar]

মোটকথা, আমাদের সুন্দরতম আচার-আচরণ তথা হাসিমুখে কথা বলা, বদান্যতা, মানুষের অশোভন আচরণে ধৈর্য ধারণ করা, কাউকে কষ্ট না দেওয়া ইত্যাদি উত্তম চরিত্র ও সুন্দর আচার-আচরণের যত বিষয় রয়েছে সেগুলোর সবচেয়ে বেশি হকদার নিজের স্ত্রী, মা-বাবা, সন্তান-সন্ততি এবং বিশেষ করে রক্ত সম্পর্কীয় বা নিকটাত্মীয়গণ। কিন্তু দুর্ভাগ্য হচ্ছে, আমাদের সমাজে দেখা যায় তার উল্টো চিত্র। অনেক মানুষ বাইরের লোকদের সাথে খুবই নম্র, ভদ্র, সভ্য ও শালিন আচরণ করে কিন্তু নিজের স্ত্রী-পরিবার ও নিকটাত্মীয়দের সাথে তার সম্পর্ক ও আচরণ খুব নিম্ন পর্যায়ের। এমনটি হওয়া উচিত নয়।‌ বরং হাদিসের ভাষ্য অনুযায়ী, সবচেয়ে ভালো মানুষ তারাই যারা তাদের স্ত্রী, পরিবার, সন্তান-সন্ততি ও আত্মীয়-স্বজনের সাথে সুন্দরতম আচরণ করে। আর সবচেয়ে পূর্ণাঙ্গ ঈমানের অধিকারী সে ব্যক্তি যার আচার-আচরণ সবচেয়ে সুন্দর এবং এই সুন্দর আচরণের অধিকারীরাই কিয়ামতের দিন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর সন্নিকটে অবস্থান করবে। আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে আমাদের স্ত্রী, সন্তান-সন্ততি, মা,‌ বাবা, ভাই, বোন রক্তের সম্পর্কীয় নিকটাত্মীয়, সর্বোপরি সকল মানুষের সাথে সুন্দরতম আচরণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

▬▬▬▬✿◈✿▬▬▬▬
লেখক:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।

Share On Social Media