কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

মহিলারা কি ঈদের নামায ঘরে একাকি বা জামাতে পড়তে পারবে?

প্রশ্ন: আমাদের এলাকায় বা আশেপাশের এলাকায় ঈদগায়ে গিয়ে মহিলাদের ঈদের সালাত আদায়ের ব্যবস্থা নেই। এখন আমরা কি ঘরে একাএকা নিজ নিজ সালাত আদায় করতে পারব? বা পরিবারের মহিলা সদস্যরা একত্রিত হয়ে জামাতে সালাত আদায় করতে পারব?

উত্তর :
মহিলাদের জন্য ঘরে একাকি বা শুধু মহিলারা আলাদাভাবে ঈদের সালাত আদায় করা শরীয়ত সম্মত নয়।

ঈদ মুসলমিদে জাতীয় উৎসব। তাই রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে ঈদের সালাতের নির্দেশ দিয়েছেন। যেমন তিনি বলেন:

((لِيَخْرُجْ الْعَوَاتِقُ ذَوَاتُ الْخُدُورِوَالْحُيَّضُ وَيَعْتَزِلُ الْحُيَّضُ الْمُصَلَّى وَلْيَشْهَدْنَ الْخَيْرَ وَدَعْوَةَ الْمُؤْمِنِينَ))

“কর্তব্য হল, পর্দানশীন কুমারী মেয়েরা, এমন কি ঋতুবতী মহিলারাও ঈদগাহে যাবে। তবে ঋতুবতী মহিলাগণ নামাযের স্থান থেকে দূরে অবস্থান করে কল্যাণময় কাজ এবং মুমিনদের দু’আতে শরিক হবে।” (বুখারী, হাদীস নং ৯২৭)

عَنْ أُمِّ عَطِيَّةَ، قَالَتْ أَمَرَنَا رَسُولُ اللَّهِ ـ صلى الله عليه وسلم ـ أَنْ نُخْرِجَهُنَّ فِي يَوْمِ الْفِطْرِ وَالنَّحْرِ ‏.‏ قَالَ قَالَتْ أُمُّ عَطِيَّةَ فَقُلْنَا أَرَأَيْتَ إِحْدَاهُنَّ لاَ يَكُونُ لَهَا جِلْبَابٌ قَالَ ‏ “‏ فَلْتُلْبِسْهَا أُخْتُهَا مِنْ جِلْبَابِهَا ‏”‏ ‏.‏

উম্মু আতিয়্যাহ রা. থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাদেরকে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার দিন (ঈদের মাঠে) মহিলাদের নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেন। উম্মু আতিয়্যাহ রা. বলেন, আমরা বললাম, তাদের কারও যদি চাদর না থাকে, তার ব্যাপারে আপনার কি মত? তিনি বলেন, তার বোন নিজ চাদর থেকে তাকে পরাবে।” (বুখারী ৩২৪, ৩৫১, ৯৭১, ৯৭৪, ৯৮০-৮১, ১৬৫২; মুসলিম ৮৯০/১-৩)

এ বিষয়ে আরও অনেক বিশুদ্ধ হাদীস রয়েছে।

এ সুন্নত পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এবং বাংলাদেশের কিছু কিছু এলাকায় আজও প্রচলিত আছে আল হামদুলিল্লাহ। তবে আফসোসের বিষয়, বাংলাদেশে অধিকাংশ স্থানে এই সুন্নতটির অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায় না!

সুতরাং যে সব এলাকায় তা চালু নেই সেসব স্থানের সচেতন আলেম সমাজ এবং নেতৃস্থানীয় মুসলমানদের কর্তব্য হল, আল্লাহর রাসূলের সুন্নতকে পুনর্জীবিত করার লক্ষ্যে মহিলাদেরকেও ঈদের এই আনন্দঘন পরিবেশে অংশ গ্রহণের সুযোগ প্রদানের জন্য এগিয়ে আসা।

তবে নারী-পুরুষের অবাধ মেলামেশা, পর্দা হীনতা, উচ্ছৃঙ্খলতা ইত্যাদি যাতে না ঘটে তার জন্য আগে থেকে সকলকে সচেতন ও সাবধান করা জরুরী।
মহিলাগণ যখন বাড়ি থেকে বের হবে সর্বাঙ্গ কাপড় দ্বারা আবৃত করবে এবং সুগন্ধি ব্যবহার থেকে বিরত থাকবে। কেননা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

(((أَيُّمَا امْرَأَةٍ اسْتَعْطَرَتْ فَمَرَّتْ عَلَى قَوْمٍ لِيَجِدُوا مِنْ رِيحِهَا فَهِيَ زَانِيَة))ٌ

“যে মহিলা সুগন্ধি ব্যবহার করে অন্য মানুষের নিকট দিয়ে গমন করার ফলে তারা তার ঘ্রাণ পেল সে মহিলা ব্যভিচারিণী।” (নাসাঈ, হাদীস নং ৫০৩৬)

তবে কোন সমাজে যদি ঈদগাহে/মসজিদে মহিলাদের ব্যবস্থা না থাকে সে ক্ষেত্রে সঠিকমতানুসারে মহিলাদের জন্য আলাদভাবে জামআত করা বা ঘরে একাকি ঈদের সালাত আদায় করার প্রয়োজন নাই।
আল্লাহু আলাম।
✒✒✒✒✒
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল-মাদানী
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post