কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানিতে চাকুরী করার বিধান

প্রশ্ন: ‘ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানিতে সিকিউরিটি গার্ড হিসেবে কি চাকুরী করা যাবে? এক্ষেত্রে ধর্মীয় বিধান কি জানতে চাই।
উত্তর:
ব্রিটিশ অ্যামেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ (British American Tobacco সংক্ষেপে বিএটিবি) একটি ব্রিটিশ বহুজাতিক তামাক কোম্পানি- যার সদরদপ্তর লন্ডন, যুক্তরাজ্যে অবস্থিত। এটা বিক্রয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম তামাক কোম্পানি। (উইকিপিডিয়া)
আর আমাদের অজানা নয় যে, ইসলামের দৃষ্টিতে তামাক ও তামাকজাত বস্তু (যেমন: বিড়ি-সিগারেট, জর্দা, গুল ইত্যাদি) সব কিছুই হারাম।
সুতরাং এ সকল হারাম বস্তু উৎপাদন কারী কোম্পানির কোনও বিভাগেই চাকুরী করা জায়েজ নাই। কেউ যদি সরাসরি তামাক প্রক্রিয়া করণ বা সিগারেট উৎপন্ন করার কাজে যুক্ত থাকে তা যেমন হারাম তেমনি কেউ যদি এতে সরাসরি যুক্ত না থেকে অন্য কোনভাবে এতে সহায়তা করে (যেমন: নিরাপত্তা রক্ষী, ড্রাইভার, ক্লিনার, মার্কেটিং, ব্যবসা, বিজ্ঞাপন ইত্যাদি।) তাহলেও সে এই হারাম কাজে ‘সহায়তাকারী’ হিসেবে গণ্য হবে। আর ইসলামের দৃষ্টিতে পাপ ও সীমালঙ্ঘনের কাজে সহায়তা করা নিষিদ্ধ। আল্লাহ তাআলা বলেন,
وَتَعَاوَنُوا عَلَى الْبِرِّ وَالتَّقْوَىٰ ۖ وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ ۚ وَاتَّقُوا اللَّـهَ ۖ إِنَّ اللَّـهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ
“আর সৎকর্ম ও আল্লাহ ভীতিতে একে অন্যের সহায়তা কর। পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। আর আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা কঠোর শাস্তি দাতা।” (সূরা মায়িদা: ২)
◉‌ আল্লামা উসাইমিন রহ. বলেন,
لا يحل لك أن تعمل في هذه الشركة التي تصنع السجائر، وذلك لأن صنع السجائر والاتجار بها بيعاً وشراء محرم، والعمل في الشركة التي تصنعه إعانة على هذا المحرم،
“সিগারেট উৎপন্ন কারী কোম্পানিতে চাকুরী করা বৈধ নয়। কারণ সিগারেট তৈরি করা এবং ক্রয়-বিক্রয়ের মাধ্যমে তার ব্যবসা করা হারাম। আর যে কোম্পানি সিগারেট তৈরি করে তাতে কাজ করার হারামে সহায়তার শামিল।” [binothaimeen ডট net]
সুতরাং অর্থ উপার্জনের ক্ষেত্রে আল্লাহকে ভয় করা উচিৎ। কেননা হারাম কর্মের মাধ্যমে উপার্জিত অর্থও হারাম। মহান আল্লাহ তাআলা বিচার দিবসে হাশরের ময়দানে মানুষের আয়-ব্যয়ের হিসেব নিবেন। তাছাড়া হারাম অর্থ দ্বারা জীবিকা গ্রহণ করলে তিনি বান্দার দুআ কবুল করেন না এবং তা দ্বারা নেকির কাজ করলে তা প্রত্যাখ্যান করেন। আল্লাহ ক্ষমা করুন। আমিন।
তাই জেনে বুঝে এমন হারাম চাকুরী করা বৈধ নয়। কেউ না জেনে এমন চাকুরীতে যুক্ত থাকলে অনতিবিলম্বে তা পরিত্যাগ করে হালাল উপার্জনের পথ অনুসন্ধান করা আবশ্যক।
মনে রাখতে হবে, কেউ আল্লাহর ভয়ে হারাম পরিত্যাগ করলে তিনি তাকে অপ্রত্যাশিতভাবে সাহায্য করেন এবং উত্তম বিকল্প দান করেন। আল্লাহ তাআলা বলেন,
وَمَن يَتَّقِ اللَّـهَ يَجْعَل لَّهُ مَخْرَجًا وَيَرْزُقْهُ مِنْ حَيْثُ لَا يَحْتَسِبُ ۚ وَمَن يَتَوَكَّلْ عَلَى اللَّـهِ فَهُوَ حَسْبُهُ ۚ إِنَّ اللَّـهَ بَالِغُ أَمْرِهِ ۚ قَدْ جَعَلَ اللَّـهُ لِكُلِّ شَيْءٍ قَدْرًا
“আর যে আল্লাহকে ভয় করে, আল্লাহ তার জন্যে নিষ্কৃতির পথ করে দেন এবং তাকে তার ধারণাতীত স্থান থেকে রিজিক দেন। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর উপর ভরসা করে তার জন্যে তিনিই যথেষ্ট। আল্লাহ তার কাজ পূর্ণ করবেন। আল্লাহ সবকিছুর জন্যে একটি পরিমাণ স্থির করে রেখেছেন।” (সূরা তালাক/২ ও ৩)
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬▬◯◍◯▬▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
(লিসান্স, মদিনা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়)।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।
Share This Post