কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

বাহারে শরিয়ত নামক কিতাবের হাওয়ালায় বলা হচ্ছে যে, ১১টি স্থানে আজান দেয়া মুস্তাহাব তা কতটুকু সঠিক

■ প্রশ্ন: বাহারে শরিয়ত নামক কিতাবের হাওয়ালায় বলা হচ্ছে যে, ১১টি স্থানে আজান দেয়া মুস্তাহাব। তা কতটুকু সঠিক?

উত্তর: উক্ত ১১টি স্থানের অধিকাংশই দলিল বহির্ভূত কথা। যেমন:

(১) (সন্তান ভূমিষ্ঠ হলে) সন্তানের কানে আজান।
(এ ব্যাপারে বর্ণিত হাদিসটি সহিহ-জঈফ হওয়ার ব্যাপারে মুহাদ্দিসদের মাঝে বিতর্ক রয়েছে)
(২) দুঃশ্চিন্তাগ্রস্থ ব্যক্তির নিকট আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৩) মৃগী রোগীর সামনে আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৪) রাগান্বিত ও বদমেজাজি ব্যক্তির নিকট আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৫) বদমেজাজি জন্তুর কানে আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৬) তুমুল যুদ্ধ চলাকালীন সময় আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৭) কোথাও আগুন লাগলে আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৮) মৃত ব্যক্তিকে দাফন করার পর আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(৯) জিন অত্যাচার করলে (বা যাকে জিনে ধরেছে) তার নিকট আজান। (এ প্রসঙ্গে হাদিস সহিহ-জঈফ হওয়ার ব্যাপারে দ্বিমত রয়েছে)
(১০) জঙ্গলে রাস্তা ভুলে গেলে এবং কোন পথ প্রদর্শনকারী না থাকলে এ সময় আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(বাহারে শরিয়ত, ১ম খণ্ড, ৪৬৬ পৃষ্ঠা। রদ্দুল মুহতার, ২য় খণ্ড, ৬২ পৃষ্ঠা)
(১১) মহামারী ও রোগ-বালাই আসা কালীন আজান। (দলিল বহির্ভূত)
(বাহারে শরিয়ত, ১ম খণ্ড, ৪৬৬ পৃষ্ঠা। ফতোয়ায়ে রযবীয়া (সংশোধিত), ৫ম খণ্ড, ৩৭০ পৃষ্ঠা)

উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
জুবাইল, দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।

Share This Post