পিতা-মাতা ছাড়া অন্যের পক্ষ থেকে দান-সদকা করা কি জায়েজ

সৌদি আরবের সাবেক প্রধান মুফতি এবং বিশ্ববিখ্যাত আলেম শাইখ আব্দুল আজিজ বিন বাজ রাহ. কে প্রশ্ন করা হয়:

জর্ডান থেকে একজন প্রশ্ন করেন, আমার চাচা মারা গেছেন। অতপর আমি তার পক্ষ থেকে দান-সদকা করতে চাইলে কিছু লোক আমাকে বলল যে, তোমার পিতার মৃত্যুর পর তার পক্ষ থেকে দান করা ছাড়া চাচা, মামা ইত্যাদি অন্য কারও পক্ষ থেকে দান করা তোমার জন্য জায়েজ নয়। তাদের নিকট এই দান-সদকার সওয়াব পৌঁছবে না। এ ব্যাপারে আপনার অভিমত কী হে মহামান্য শাইখ?
উত্তরে তিনি বলেন,
هذا الذي قال هذا الكلام جاهل، غالط، بل الصدقة تقبل، وتنفع عن الأب والأم، وعن غيرهما من فضل الله -جل وعلا- الصدقة للميت تنفعه، والدعاء له ينفعه، فإذا تصدقت عن عمك، أو عن أخيك، أو عن غيرهما؛ فلا بأس كله طيب، يقول النبي ﷺ: إذا مات ابن آدم؛ انقطع عمله إلا من ثلاث: صدقة جارية… هذا عام أو علم ينتفع به، أو ولد صالح يدعو له وسأله رجل، قال: يا رسول الله! إن أمي توفيت، ولم توص، أفلها أجر إن تصدقت عنها؟ قال النبي ﷺ: نعم.
فالصدقة فيها خير كثير عن الحي والميت، وهكذا الدعاء والاستغفار للحي والميت، والحج عن الميت، والعمرة عن الميت، وهكذا عن الكبير العاجز، والعجوز الكبيرة، الحج عنها، والعمرة عنها.
المقصود: أن الصدقة عن الميت فيها خير كثير، وعن الحي أيضًا، سواء، كان عمًا، أو أخًا، أو أبًا، أو غيرهم. نعم.
“যে এই কথাগুলো বলেছে সে অজ্ঞ এবং ভুল কারী। বরং আল্লাহর অনুগ্রহে পিতা, মাতা এবং তারা ছাড়া অন্যদের পক্ষ থেকেও দান-সদকা গৃহীত হয় এবং তারা এর দ্বারা উপকৃত হয়। দান-সদকা মৃতকে উপকৃত করে, দুআ তাকে উপকৃত করে। অতএব তুমি যদি তোমার চাচার পক্ষ থেকে দান-সদকা করো অথবা তোমার ভাই বা অন্য কারও পক্ষ থেকে দান-সদকা করো তাহলে তাতে কোনও সমস্যা নেই। সবই ভালো। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, যদি আদম সন্তান মারা যায় তাহলে তার সকল আমল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় তিনটি ব্যতীত:
ক. সদকায়ে জরিয়া (প্রবহমান সদকা তথা এমন দান যা দ্বারা দীর্ঘদিন মানুষ উপকৃত হয়),
খ. এমন ইলম (শরিয়তের জ্ঞান) যা দ্বারা উপকৃত হওয়া যায়,
গ. নেককার সন্তান যে তার জন্য দুআ করে। [সহিহ মুসলিম]
এক ব্যক্তি তাঁকে (নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে) জিজ্ঞাসা করল, হে আল্লাহর রসূল, আমার মা মারা গেছেন কিন্তু এবং তিনি অসিয়ত (মৃত্যুর কালে দান-সদকা করার নির্দেশ) করেননি। এখন আমি তার পক্ষ থেকে দান-সদকা করলে তিনি কি এর সওয়াব পাবেন? নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, “হ্যাঁ।”

জীবিত ও মৃতদের পক্ষ থেকে দান-খয়রাতে অনেক কল্যাণ রয়েছে। একইভাবে জীবিত ও মৃতদের জন্য দুআ ও মাগফেরাত কামনা করা, মৃতদের পক্ষ থেকে হজ ও ওমরা করা। অনুরূপভাবে অক্ষম বৃদ্ধ পুরুষ বা নারীর পক্ষ থেকে হজ ও ওমরা করা।
মোটকথা, মৃতদের পক্ষ থেকে, অনুরূপভাবে জীবিতদের পক্ষ থেকেও দান-সদকা করার মধ্যে অনেক কল্যাণ রয়েছে, সে চাচা, ভাই, পিতা বা অন্য যে কোনও ব্যক্তি হোক না কেন।” [binbaz]

▬▬▬▬▬▬✿◈✿▬▬▬▬▬▬
অনুবাদক: আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।