কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

কোন মহিলা যদি ক্ষয়-ক্ষতি বা প্রাণনাশের আশঙ্কায় স্বামীর নিকট থেকে তালাক নিতে বাধ্য হয়

প্রশ্ন: আমরা জানি, বিনা কারণে স্বামী থেকে তালাক নিলে সে নারী জান্নাতে খশবু পাবে না। কিন্তু সে নারী যদি নিজের বাবা-মার জানের ভয়ে তালাক নেয় তাহলে কি গুনাহ হবে?

উত্তর:
হ্যাঁ, কোন নারী যদি বিনা কারণে স্বামীর নিকট তালাক চায় তাহলে সে জান্নাতে সুঘ্রাণ পাবে না।
কেননা হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, সাওবান (রাযি.) সূত্রে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন:
أَيُّمَا امْرَأَةٍ سَأَلَتْ زَوْجَهَا طَلَاقًا فِي غَيْرِ مَا بَأْسٍ، فَحَرَامٌ عَلَيْهَا رَائِحَةُ الْجَنَّةِ صحيح
“যদি কোনও মহিলা অহেতুক তার স্বামীর নিকট তালাক চায় তার জন্য জান্নাতের সুগন্ধও হারাম হয়ে যায়। [সুনান আবূ দাউদ (তাহকিককৃত) হাদিস নম্বরঃ [2226] অধ্যায়ঃ ৭/ তালাক (كتاب الطلاق) আল্লামা আলবানী একাডেমী তিরমিযী, ইবনে মাজাহ। সহিহ ]

আর ইসলামী শরিয়া মোতাবেক যথা নিয়মে বিয়ে হওয়ার পর যদি নিজে বাবা-মা বা পরিবারের পক্ষ থেকে জুলুমের শিকার হওয়ার আশংকা করে অথবা সন্ত্রাসী কর্তৃক তার নিজের অথবা বাবা-মা বা পরিবারের কারও জীবনের উপর হুমকি আসে এবং এ অবস্থায় সে যদি বাধ্য হয়ে স্বামীর নিকট থেকে তালাক নেয় তাহলে এতে কোন গুনাহ নেই এবং সে উপরোক্ত হাদিসের অন্তর্ভুক্ত হবে না। কারণ ইবনে আব্বাস রা. হতে বর্ণিত হয়েছে, রাসূল সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন:
“إنَّ اللَّهَ تَجَاوَزَ لِي عَنْ أُمَّتِي الْخَطَأَ وَالنِّسْيَانَ وَمَا اسْتُكْرِهُوا عَلَيْهِ”
“আমার উদ্দেশ্যে আল্লাহ্‌ আমার উম্মতের অনিচ্ছাকৃত ত্রুটি ও ভুল ক্ষমা করে দিয়েছেন এবং তার সে কাজ যা সে করতে সে বাধ্য হয়েছে।”

[এ হাদিসটি হাসান। ইবনে মাজাহ্ (নং-২০৪৫), বায়হাকী (সুনান, হাদিস নং-৭) ও আরও অনেকেই এ হাদিসটি বর্ণনা করেছেন।]
তবে এ অন্যায় হস্তক্ষেপের কারণে আইনের আশ্রয় নেয়ার চেষ্টা করা দরকার। কারণ শরীয়ত সম্মত
ও আইনানুগ বিবাহে অন্যায়ভাবে কারো হস্তক্ষেপ, হুমকি-ধমকি বা বল প্রয়োগের মাধ্যমে তালাক নিতে বাধ্য করার অধিকার নাই। ইসলামী শরিয়ত এবং দেশীয় আইনে এটি মারাত্মক অপরাধ।
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬ ◈◉◈▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, KSA

Share This Post