একটি গোমরাহী মূলক কথা: “ফরজ ইবাদত হল নিজের জন্য, সুন্নাত রাসুলের জন্য আর নফল নিজের জন্য!!

প্রশ্ন: আমরা অনেকের কাছে শুনে থাকি “ফরজ ইবাদত হল নিজের জন্য, সুন্নাত রাসুলের জন্য আর নফল নিজের জন্য।” কথাটা কি ঠিক?
আমার স্বল্প ইলমে কেন যেন মনে হয়, কথাটাতে একটা শিরকি ভাব আছে। ইবাদত আবার নবীর অথবা নিজের জন্য কিভাবে হয়!? ইবাদত তো শুধু আল্লাহর জন্য হবে! তাই, শেইখের কাছে অনুরোধ রইল, বিষয়টা একটু পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দেয়ার।
উত্তর:
“ফরজ ইবাদত হল নিজের জন্য, সুন্নাত রাসুলের জন্য, আর নফল নিজের জন্য” এটি একটি সম্পূর্ণ গোমরাহী মূলক কথা। এ বিশ্বার রাখলে মারাত্মক গুনাহ হবে।
সঠিক বিশ্বাস হল, ফরয, সুন্নত, নফল ইত্যাদি যত ইবাদত রয়েছে সব একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য করতে হবে। কেউ যদি নবী সা. এর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে বা অন্য কোন ব্যক্তির সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে কোন ধরণের ইবাদত করে তাহলে তা শিরকে পরিণত হবে।
আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে সকল প্রকার ইবাদত কেবল নিরঙ্কুশভাবে কেবল তার জন্য নির্ধারণ করার নির্দেশে দিয়েছেন।

وَمَا أُمِرُوا إِلَّا لِيَعْبُدُوا اللَّـهَ مُخْلِصِينَ لَهُ الدِّينَ حُنَفَاءَ
“তাদেরকে এছাড়া কোন নির্দেশ করা হয়নি যে, তারা খাঁটি মনে একনিষ্ঠভাবে আল্লাহর এবাদত করবে।” সুলা আল বাইয়েনাত: ৫)
সুতরাং সকল প্রকার ইবাদত চাই তা ফরজ হোক, সুন্নাত হোক, নফল হোক সব একমাত্র আল্লাহর উদ্দেশ্যেই সম্পাদন করতে হবে। অন্যথায় শিরকে পরিণত হবে। আ্ল্লাহু আলাম।
——————–
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।।

Share On Social Media