মৃত বাবা-মার জন্য উমরা করা যাবে কি যদি তারা জীবিত অবস্থায় হজ সম্পাদন করে থাকেন

প্রশ্ন: মৃত বাবা-মার জন্য উমরা করা যাবে কি যদি তারা জীবিত অবস্থায় হজ সম্পাদন করে থাকেন?
উত্তর: জীবিত বাবা-মা বা কোন নিকটাত্মীয় যিনি শারীরিক কারণে উমরা করতে পারছেন না এমন ব্যক্তির পক্ষ থেকে উমরা করা কি হাদিস সম্মত?
উত্তর:
🔸 মৃত ব্যক্তির পক্ষ থেকে হজ ও ওমরা করা:

যেকোনো মৃত ব্যক্তির পক্ষ থেকে উমরা করা জায়েজ-তারা জীবদ্দশায় উমরা করে থাকুক অথবা না থাকুক, জীবদ্দশায় হজ-ওমরা করার আর্থিক সঙ্গতি থাকুক বা না থাকুক।
প্রখ্যাত সাহাবী আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. হতে বর্ণিত,বনী জুহাইনা সম্প্রদায়ের এক মহিলা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর নিকট এসে বললেন, আমার মা হজ্জের মানত করেছিলেন,কিন্তু হজ্জ করার আগেই তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। আমি কি তার পক্ষ থেকে হজ্জ পালন করব?
তিনি বললেন,“তোমার মায়ের উপর যদি ঋণ থাকত তবে কি তুমি তা আদায় করতে না? আল্লাহর পাওনা আদায় কর। কারণ,আল্লাহ তো তাঁর পাওনা পাওয়ার বেশী হকদার।” [বুখারী,অধ্যায়: মৃতের পক্ষ থেকে হজ্জ এবং মানত পালন করা এবং পুরুষ মহিলার পক্ষ থেকে হজ্জ করতে পারে।]

🔸 জীবিত ব্যক্তির পক্ষ থেকে হজ ও ওমরা করা:

হজ ও ওমরার ক্ষেত্রে কোন ব্যক্তি যদি আর্থিক এবং অন্যান্য দিক দিয়ে মক্কায় আসার সামর্থ্য রাখে কিন্তু বার্ধক্য কিংবা অসুস্থতার কারণে শারীরিকভাবে মক্কা যাতায়াতে সক্ষম না হয় এবং ভবিষ্যতে সুস্থ হওয়ারও সম্ভাবনা না থাকে তাহলে তার পক্ষ থেকে অন্য কোন ব্যক্তির বদলি ওমরা-হজ সম্পাদন করা জায়েয।
তবে উভয় ক্ষেত্রে শর্ত হলো, যে ব্যক্তি মৃত বা জীবিত ব্যক্তির পক্ষ থেকে হজ-উমরা আদায় করতে চায় সে যেন ইতোপূর্বে নিজের ওমরা-হজ্ব সম্পাদন করে থাকে। অন্যথায় তার দ্বারা বদলি পালন করা সহীহ হবে না।
এ ব্যাপারে হাদীসে বণির্ত হয়েছে:
عن ابْنِ عَبَّاسٍ أَنَّ النَّبِىَّ -صلى الله عليه وسلم- سَمِعَ رَجُلاً يَقُولُ لَبَّيْكَ عَنْ شُبْرُمَةَ. قَالَ « مَنْ شُبْرُمَةَ ». قَالَ أَخٌ لِى أَوْ قَرِيبٌ لِى. قَالَ « حَجَجْتَ عَنْ نَفْسِكَ ». قَالَ لاَ. قَالَ « حُجَّ عَنْ نَفْسِكَ ثُمَّ حُجَّ عَنْ شُبْرُمَةَ »
ইবনে আব্বাস রা. হতে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (বিদায় হজ্জে যাওয়া প্রাক্কালে এহরাম বাঁধার সময়) এক ব্যক্তিকে বলতে শুনলেন, সে বলছে: لَبَّيْكَ عَنْ شُبْرُمَةَ লাব্বাইকা আন শুবরুমা অর্থাৎ: “শুবরুমার পক্ষ থেকে উপস্থিত। “
নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জিজ্ঞেস করলেন: শুবরুমা কে? উত্তরে লোকটি বলল, সে আমার ভাই অথবা বলল, আমার নিকটাত্মীয়। তিনি জিজ্ঞেস করলেন, তুমি কি নিজের হজ্জ সম্পাদন করেছ? লোকটি বলল, না। তিনি বললেন, নিজের হজ্জ আগে সম্পাদন কর পরে শুবরুমার পক্ষ থেকে করবে। ” [সুনান আবু দাউদ। অনুচ্ছেদ: বদলী হজ্জ সম্পাদন করা। হাদীসটি সহীহ]
আল্লাহু আলাম।
————————-
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল মাদানী।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদী আরব।

Share On Social Media