কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

সুদী ব্যাংকে চাকুরী করার বিধান সম্পর্কে অজ্ঞ থাকার কারণে যদি কেউ সারা জীবন সুদী ব্যাংকে চাকুরী করে

প্রশ্ন: সুদী ব্যাংকে চাকুরী করার বিধান সম্পর্কে অজ্ঞ থাকার কারণে যদি কেউ সারা জীবন সুদী ব্যাংকে চাকুরী করে তাহলে চাকুরী থেকে অব্যহতি নেয়ার পর তার জন্য করণীয় কি?

উত্তর:
সুদী ব্যাংকে চাকুরী করা হারাম। কেননা এতে সরাসরি সুদের সাথে জড়িত থাকার পাশাপাশি হারাম কাজে সহায়তা করা হয়।
তবে কেউ যদি সুদ ও সুদী ব্যাংকে চাকুরী করা হারাম ব্যাপারে না জানার কারণে সারা জীবন তাতে চাকুরী করে এবং শেষ পযর্ন্ত চাকুরী থেকে অব্যহতি গ্রহণ করে তাহলে তার জন্য এখন করণীয় হল, আল্লাহর নিকট অতীত ভুলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করা আর ব্যাংকে চাকুরীর ইনকাম তার জন্য হালাল। চাই সে তা খরচ করে ফেলুক অথবা জমা থাকুক। কারণ আল্লাহ তাআলা বলেন:
وَأَحَلَّ اللَّـهُ الْبَيْعَ وَحَرَّمَ الرِّبَا ۚ فَمَن جَاءَهُ مَوْعِظَةٌ مِّن رَّبِّهِ فَانتَهَىٰ فَلَهُ مَا سَلَفَ وَأَمْرُهُ إِلَى اللَّـهِ ۖ وَمَنْ عَادَ فَأُولَـٰئِكَ أَصْحَابُ النَّارِ ۖ هُمْ فِيهَا خَالِدُونَ

“আল্লা’হ তা’আলা ক্রয়-বিক্রয় বৈধ করেছেন এবং সুদ হারাম করেছেন। অতঃপর যার কাছে তার পালনকর্তার পক্ষ থেকে উপদেশ এসেছে এবং সে বিরত হয়েছে, পূর্বে যা হয়ে গেছে, তা তার। তার ব্যাপার আল্লাহর উপর নির্ভরশীল। আর যারা পুনরায় সুদ নেয়, তারাই জাহান্নামে যাবে। তারা সেখানে চিরকাল অবস্থান করবে।” (সূরা বাকারা: ২৭৫)
আল্লামা মুহাম্মদ বিন সালিহ আল উসাইমীন রাহ. বলেন: “এই আয়াত থেকে জানা যায় যে, কোন ব্যক্তি সুদ হারাম হওয়ার বিধান সম্পর্কে জানার পূর্ব পর্যন্ত যে সকল সুদ গ্রহন করেছে তা তার জন্য হালাল। তবে শর্ত হল যে, জানার পর তওবা করবে এবং উক্ত কাজ থেকে ফিরে আসবে।” (তাফসীর সূরাতুল বাকারা ৩য় খণ্ড ৩৭৭ পৃষ্ঠা)
আল্লাহু আলাম
✒✒✒ ✒ ✒
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, KSA.

Share This Post