কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে ‘রওযা’ বলা কি ঠিক

প্রশ্ন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে ‘রওযা’ বলা কি ঠিক? রওযা কী? রাসূল এর কবরের পাশে আর কাকে দাফন করা হয়েছে?
▬▬▬🔹🔹▬▬▬
উত্তর:
নিম্নে উপরোক্ত প্রশ্নসমূহের উত্তর প্রদান করা হল:

💠 ‘রওযা’ সংক্রান্ত একটি ব্যাপক প্রচলিত ভুল সংশোধনী:

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে রওযা বলা একটি ব্যাপক প্রচলিত ভুল।
আমাদের সমাজে বেশির ভাগ সাধারণ মুসলিম এমনকি, অনেক মৌলভী-মাওলানা এবং ওয়াজকারী সুরেলা বক্তা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে ‘রওযা’ বলে উল্লেখ করে থাকে। বিভিন্ন গান-গজলেও তা ব্যাপকভাবে প্রচলিত। কিন্তু এটি একটি নিছক অজ্ঞতা। হাদিসে কোথাও রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে ‘রওযা’ বলে অভিহিত করা হয় নি বরং তাঁর কবরকে ‘কবর’ই বলা হয়েছে।
যেমন দেখুন নিম্নোক্ত হাদিসে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তার কবরকে কবর হিসেবে উল্লেখ করেছেন:
عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم ‏ “‏ لاَ تَجْعَلُوا بُيُوتَكُمْ قُبُورًا وَلاَ تَجْعَلُوا قَبْرِي عِيدًا وَصَلُّوا عَلَىَّ فَإِنَّ صَلاَتَكُمْ تَبْلُغُنِي حَيْثُ كُنْتُمْ ‏”‏ ‏
আবু হুরাইরাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন: “তোমরা তোমাদের ঘরগুলোকে কবরস্থানে পরিণত করো না এবং আমার কবরকে উৎসবের স্থানে পরিণত করো না। তোমরা আমার উপর দরূদ পাঠ করো। তোমরা যেখানেই থাকো না কেন তোমাদের দরূদ আমার কাছে পৌঁছানো হবে।” [সুনানে আবু দাউদ, অধ্যায়: হজ্জ অনুচ্ছেদ, কবর যিয়ারত, হা/ ২০৪২, সহিহ]

সুতরাং আমাদেরও কর্তব্য হবে, প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরকে কবর বলা; রওযা নয়।

 রওযা কাকে বলে?
রওযা শব্দের অর্থ বাগান। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর মসজিদে অবস্থিত খুতবার মিম্বার এবং তাঁর ঘর (বর্তমানে কবর) এর মধ্যস্থিত স্থানকে রওযা (রিয়াদুল জান্নাহ বা জান্নাতের বাগান) বলা হয়।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:
«مَا بَيْنَ بَيْتِي وَمِنْبَرِي رَوْضَةٌ مِنْ رِيَاضِ الْجَنَّةِ وَمِنْبَرِي عَلَى حَوْضِي»
‘‘আমার ঘর (বর্তমানে কবর) ও মিম্বারের মাঝখানের স্থানটি রওযাতুন মিন রিয়াযিল জান্নাহ বা জান্নাতের বাগিচা সমূহের একটি বাগিচা। আর আমার মিম্বার আমার হাওজের উপর অবস্থিত।’’[সহীহ বুখারী, হাদিস নং ৭৩৩৫ ও সহীহ মুসলিম, হাদিস নং ৩৪৩৬।]

 রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরের পাশে আর কার কবর আছে?

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরের পাশে তার সবচেয়ে নিকটতম দুই সাথী ও সর্বক্ষেত্রে সাহায্যকারী মুসলিম জাহানের ১ম ও ২য় খলীফা যথাক্রমে আবু বকর সিদ্দীক রা. এবং উমর ইবনুল খাত্তাব রা. এর কবর রয়েছে।

একটি কথা প্রচলিত রয়েছে যে, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর কবরের সন্নিকটে আরেকটি জায়গা ফাঁকা রয়েছে। সেখানে শেষ জামানায় ঈসা আলাইহিস সালাম দুনিয়াতে পূর্ণগমন করলে তার মৃত্যুর পর তাকে সেখানে দাফন করা হবে। কিন্তু এ মর্মে বর্ণিত হাদিসটি সহীহ নয়।
এ মর্মে বর্ণিত যঈফ হাদিস ও সে ব্যাপারে মুহাদ্দিসদের বক্তব্য নিম্নে পেশ করা হল:
عن عبد الله بن عمرو رضي الله عنهما قال : قال رسول الله صلى الله عليه وسلم : ( ينزل عيسى ابن مريم إلى الأرض ، فيتزوج ، ويولد له ، ويمكث خمسا وأربعين سنة ، ثم يموت فيدفن معي في قبري ،

رواه ابن أبي الدنيا – كما عزاه إليه الذهبي في “ميزان الاعتدال” (2/562) – وابن الجوزي في “العلل المتناهية” (2/915) وفي “المنتظم” (1/126) ، وفي “الوفا” (2/714) أيضا : من طريق عبد الرحمن بن زياد بن أنعم الإفريقي .
قال ابن الجوزي : ” هذا حديث لا يصح ، والإفريقي ضعيف بمرة ” انتهى .
وأورده الذهبي في “ميزان الاعتدال” في سياق المناكير التي رواها هذا الراوي ، وقال : ” فهذه مناكير غير محتملة ” انتهى .
وقال الشيخ الألباني في “السلسلة الضعيفة” برقم (6562) : ” منكر ” انتهى
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬🔹🔹▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, ksa

Share This Post