কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

মৃত ব্যক্তির পরিত্যক্ত সম্পদ বণ্টন হতে দেরি হলে সে কবরে আযাবের সম্মুখীন হবে এমন কোন হাদীস আছে কি

প্রশ্ন: “মৃত ব্যক্তির পরিত্যক্ত সম্পদ বণ্টন হতে দেরি হলে সে কবরে আযাবের সম্মুখীন হবে” এমন কোন হাদীস আছে কি বা এ কথাটা কি সঠিক?
—————————-
উত্তর:
“মৃত ব্যক্তির পরিত্যক্ত সম্পদ বণ্টন হতে দেরি হলে সে কবরে আযাবের সম্মুখীন হবে” এমন কোন হাদিস পাওয়া যায় না। তবে যদি মৃত ব্যক্তির ঋণ থেকে থাকে তাহলে তা পরিশোধ করার পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পরিত্যাক্ত সম্পদ বণ্টন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা কর্তব্য। অন্যথায় তা উত্তরাধিকারীদের মাঝে মনমালিন্য ও ঝগড়াঝাঁটির সৃষ্টি করতে পারে।
মৃত ব্যক্তি যদি মরণের পূর্বে ঝগড়া সৃষ্টি হতে পারে এমন কোন কার্যক্রম করে না যায় তাহলে মারা যাওয়ার পর তার উত্তরাধিকারীগণ বণ্টন প্রক্রিয়ায় বিলম্ব করলে সে জন্য সে দায়ী নয়। কিন্তু মৃত ব্যক্তি যদি বেঁচে থাকা অবস্থায় অন্যায়ভাবে কাউকে অতিরিক্ত সম্পদ প্রদান করে যায় বা ভাগবাটোয়ারা করার ব্যাপারে অগ্রীম পক্ষপাতিত্ব করে যায় যার কারণে তার উত্তরাধিকারীদের মাঝে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় তাহলে নি:সন্দেহে তাকে এর দায় বহন করতে হবে এবং সে আল্লাহর কাছে অপরাধী হিসেবে পরিগণিত হবে। কারণ সেই এ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির কারণ।

তাই প্রতিটি মানুষের জন্য তার অর্থ-সম্পদ দান, হেবা ইত্যাদি করার ক্ষেত্রে ইনসাফ করা আবশ্যক। আর এমন কোন কাজ না করা যার কারণে তার মৃত্যুর পর তার সন্তান-সন্ততি, ভাইবোন বা অন্যান্য উত্তরাধিকারীগণ সম্পদ নিয়ে ঝগড়াঝাঁটি, মনোমালিন্য বা মামলা-মোকদ্দমায় জড়িয়ে না পড়ে।

ইসলামী শরীয়ত কে কতটুকু সম্পদ প্রাপ্য তা সুষ্পষ্টভাবে নির্ধারণ করে দিয়েছে। সুতরাং তা সঠিকভাবে মেনে বণ্টন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে তাতে কোন সমস্যা থাকবে না।
———————
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল মাদানী
জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সউদী আরব।।

Share This Post