কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

মাগরিব সালাতের শুরু এবং শেষ সময়

প্রশ্ন: মাগরিব সালাতের শুরু এবং শেষ সময়

উত্তর:
সূর্য পরিপূর্ণভাবে অস্ত গেলে মাগরিব সালাতের সময় শুরু হয় এবং পশ্চিম দিগন্তে রক্তিম আভা (الشفق) ডুবে যাওয়া পর্যন্ত তা অবশিষ্ট থাকে। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন,
وَوَقْتُ صَلَاةِ الْمَغْرِبِ مَالَمْ يَغِبِ الشَّفَقُ
“এবং মাগরিবের সালাতের ওয়াক্ত থাকে যতক্ষণ না শাফাক অন্তর্হিত হয়।” [সহীহ মুসলিম, হা/ ১৪১৯]

শাফাক এর আভিধানিক অর্থ:
الشَّفَقُ: حُمْرَةٌ تَظْهَرُ في الأفُقِ حيث تغْرب الشمسُ، وتستمرُّ من الغروب إلى قبيل العشاء تقريبًا
“শাফাক হল, সূর্যাস্তের পর (পশ্চিম) দিগন্তে যে লাল আভা প্রস্ফুটিত হয় এবং প্রায় ইশার পূর্বক্ষণ পর্যন্ত স্থায়ী হয়।” [আল মাআনি-অনলাইন আরবি অভিধান]

আর ঘড়ির সময়ের হিসেবে সূর্যাস্তের পর থেকে প্রায় ৮৫ বা ৯০ মিনিট পর্যন্ত মাগরিবের সময় অবশিষ্ট থাকে। তারপর ইশার ওয়াক্ত শুরু হয়।

❐ এ বিষয়ে শাইখ বিন বাজ রাহ .এর ফতোয়া প্রদান করা হল:

প্রশ্ন: সম্মানিত শায়খ, আজানের পর সময়ের হিসেবে মাগরিবের সময় কতক্ষণ থাকে?
উত্তর:
“বেশিরভাগ এ সময়টা প্রায় দেড় ঘণ্টা। সূর্যাস্ত এবং শাফাক তথা পশ্চিম দিগন্তের রক্তিম আভা অস্তমিত হওয়ার মাঝে সময় থাকে প্রায় দেড় ঘণ্টা বা পাঁচ মিনিট কম দেড় ঘণ্টা। তবে মানুষ সতর্কতার জন্য ‘দেড় ঘণ্টা’ সময় গ্রহণ করেছে। এসময়ের মধ্যে রক্তিম আভা সম্পূর্ণভাবে অদৃশ্য হয়ে যায় এবং ইশার সালাতের সময় প্রবেশ করে।
মরুভূমিতে (বা উন্মুক্ত মাঠে দাঁড়িয়ে) এই রক্তিম আভা অদৃশ্য হওয়ার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়া প্রয়োজন। যে তা পর্যবেক্ষণ করবে এবং ভালো করে খেয়াল করবে সে মিনিটের হিসেবে এসময়-সীমাটা নির্ধারণ করতে সক্ষম হবে। তবে এখন যা গ্রহণ করা হয়েছে তা হল, সর্তকতার স্বার্থে দেড় ঘণ্টা। সূর্যাস্ত থেকে পশ্চিম দিগন্তে লাল আভা ডুবে যাওয়ার সময় দেড় ঘণ্টা।” [ফাতাওয়া বিন বাজ, নূরুন আলাদ দারব (ফতোয়া বিষয়ক জনপ্রিয় সৌদি রেডিও প্রোগ্রাম) ৭/২৭-২৮]

এখান থেকে বুঝা গেল, মাগরিব সালাতের সময় যথেষ্ট দীর্ঘ। কিন্তু আমাদের সমাজে এ সময়টাকে খুব সংকীর্ণ ভাবা হয়। যার কারণে অধিকাংশ মসজিদে মাগরিবের আজান শেষ হতে না হতেই নামাজ শুরু করে দেয়া হয়। অথচ আরব বিশ্বের মসজিদগুলোতে সাধারণত: আজানের কমপক্ষে ১০ মিনিট পরে সালাত দাঁড়ায়। এ সময় মানুষ কর্মব্যস্ততা ছেড়ে ওজু করে মসজিদে এসে সুন্দরভাবে দু রাকাআত তাহিয়াতুল মসজিদ পড়ে। তারপর কিছুক্ষণ বসে কুরআন তিলাওয়াত ও জিকির-আজকার করে। তারপর সালাত শুরু হয়।
▬▬▬❂❖❂▬▬▬
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
জুবাইল, সৌদি আরব।

Share This Post