কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

বিনা বাধায় আল্লাহর দরবারে হজ্জ কবুলের উপায়

প্রশ্ন: কেউ যদি চায় তার যে, তার হজ্জ আল্লাহর দরবারে বিনা বাধায় কবুল হোক তাহলে ওই ব্যক্তির কী কী করা উচিৎ? ঈমান ও আমলের কোন বিশেষ দিকগুলির দিকে তাকে যত্নবান হতে হবে?

উত্তর:
নি:সন্দেহ হজ্জ আল্লাহর দরবারে গৃহীত হলে তার একমাত্র প্রতিদান জান্নাত। হজ্জের মাধ্যমে আল্লাহ বান্দার অতীতের গুনাহগুলো মোচন করে দেন। এ মর্মে একাধিক হাদিস বিদ্যমান রয়েছে।

যাহোক নিন্মে আল্লাহর দরবারে হজ্জ কবুলের জন্য কতিপয় নির্দেশনা প্রদান করা হল। এগুলো অনুসরণ করলে আশা করা যায়, মহান আল্লাহ হজ্জ কবুল করবেন। যথা:
১. একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে হজ্জ সম্পাদন করা।
২. রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর পদ্ধতি অনুযায়ী হজ্জ সম্পাদন করা।
৩. যেন হজ্জের কোনো আহকাম বা আদব ছুটি না যায় বা কোথাও ভুলত্রুটি না হয় এ জন্য আগে থেকে সহিহ সুন্নাহ অনুযায়ী হজ্জের বিধিবিধানগুলো সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞানার্জন করা এবং মানসিকভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করা। তারপরও ভুল হয়ে গেলে (যথা নিয়মে) ফিদিয়া প্রদান করা এবং আল্লাহর নিকট তওবা করা।
৪. সম্পূর্ণ হালাল উপার্জন থেকে হজ্জ সম্পাদন করা।
৫. ভালো লোকদের সাথে হজ্জ সফরে গমন করা। এ সময় মানুষের সাথে সুন্দর আচরণ করা, মানুষের উপকার করা এবং কাউকে কষ্ট না দেয়া এবং যথাসম্ভব কুরআন তিলাওয়াত, দুআ, নফল সালাত, তাসবিহ, যিকির-আযকার, দান-সদকা ইত্যাদি বিভিন্ন প্রকার ইবাদতে সময় কাটানো।
৬. হজ্জ সফরে অধিক পরিমাণে তওবা-ইস্তিগফার করা।
৭. মানুষের অধিকার নষ্ট করে থাকলে প্রাপককে তার পাওনা ফেরত দেয়া, কারো প্রতি অন্যায়-অবিচার করে থাকলে তার নিকট ক্ষমা চাওয়া বা যে কোনো মূল্যে তা নিষ্পত্তি করা।
৮. হজ্জে গিয়ে সব ধরণের অশ্লীলতা ও পাপাচার থেকে দুরে থাকা।
৯. হজ থেকে ফিরে এসে যথাসাধ্য শিরক-বিদআত সহ সকল প্রকার আল্লাহর নাফরমানি থেকে দূরে থাকা এবং বাকি জীবন ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে আল্লাহর রাস্তায় কাটানোর জন্য দৃঢ় অঙ্গীকার করা। তারপরও ভুলত্রুটি হয়ে গেলে তৎক্ষণাৎ আল্লাহর নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করা।
মোটকথা, এমন আন্তরিকতা সহকারে সঠিক পদ্ধতিতে হজ সম্পাদনের চেষ্টা করতে হবে যেন মনের মধ্যে এই ধারণা জন্মে যে, আল্লাহর তাআলা হজ কবুল করেছেন। সেই সাথে কবুলের জন্য তাঁর দরবারে দুআও করতে হবে।
আল্লাহ তাওফিক দান করুন। আমীন।
▬▬▬🔹🕋🔹▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post