প্রতিনিয়ত আমাকে কাছের মানুষদের কাছে শুনতে হয় যে, আমি লেবাসধারি ভণ্ড

প্রশ্ন: প্রতিনিয়ত আমাকে কাছের মানুষদের কাছে শুনতে হয় যে, আমি লেবাসধারি-ভণ্ড। আমি তাদেরকে কিভাবে বুঝবো যে, আমি হেদায়েত প্রাপ্ত?

উত্তর:
কাউকে বুঝানোর প্রয়োজন নাই যে, আপনি হেদায়েত প্রাপ্ত। বরং আপনার জন্য জরুরি হল, মানুষের সমালোচনা ও তির্যক মন্তব্যের দিকে কর্ণপাত না করে আল্লাহর সন্তুষ্টি ও সওয়াবের নিয়তে মহান আল্লাহর হক আদায়ের পাশাপাশি বান্দার হক আদায় করা। অর্থাৎ সালাত, সিয়াম, যাকাত, হজ্জ, পর্দা, কুরআন তিলাওয়াত, হাদিস পাঠ, জিকির, দুআ, তাসবিহ ও ইস্তিগফার পাঠ, যথাসাধ্য দাওয়াতি কাজ, জ্ঞান চর্চা সহ সাধ্যানুযায়ী অধিক পরিমাণে আল্লাহর ইবাদত-বন্দেগিতে নিমগ্ন থাকবেন। শিরক, বিদআত, পাপাচার ও দীন বিরোধী সর্বপ্রকার কার্যক্রম থেকে দূরে থাকবেন। পাশাপাশি মানুষের সাথে সুন্দর আচরণ, পরোপকার, হাসিমুখে কথা বলা, গরিব-অসহায় ও বিপদগ্রস্থ মানুষকে সাহায্য-সহযোগিতা করা, পিতামাতার সেবা, স্বামীর আনুগত্য, সালাম বিনিময়, আন্তরিকতার সাথে মেহমানদারি, রক্ত সম্পর্কীয় আত্মীয়দের সাথে সুসম্পর্ক রক্ষা, দয়া ও নম্রতা পূর্ণ আচরণ, রোগীর সেবা-শুশ্রুষা ইত্যাদি করবেন এবং কাউকে কষ্ট দেয়া, পরচর্চা, গালাগালি, অভিশাপ বর্ষণ, প্রতারণা, জুলুম-নির্যাতন, নিষ্ঠুরতা, অহংকারী আচরণ, আল্লাহর নাফরমানি মূলক কথাবার্তা, মিথ্যা কথা, মিথ্যা সাক্ষ্য, কারো গোপনীয়তা ভঙ্গ, আমানতের খেয়ানত, অঙ্গীকার ভঙ্গ, অশ্লীল বাক্যালাপ ইত্যাদি থেকে দূরে থাকবেন।

এভাবে যখন ইসলামের আলোকে নিজের জীবনকে ঢেলে সাজাবেন তখনই আপনি হেদায়েত, মুক্তি, সফলতা ও রবে আলোকিত পথে প্রতিষ্ঠিত থাকবেন। মানুষকে আলাদাভাবে বুঝানোর প্রয়োজন নাই যে, আপনি হেদায়েতের পথে এসেছেন। তারপরও জাহেল ও হিংসুকরা আপনাকে ভণ্ড, কপট ও নানা খারাপ কথা বলে কষ্ট দিলে চরম ধৈর্যের পরিচয় দিন, ক্ষমা করুন এবং জাহেলদের থেকে দূরে থাকুন।

আল্লাহ তাআলা বলেন,
خُذِ الْعَفْوَ وَأْمُرْ بِالْعُرْفِ وَأَعْرِضْ عَنِ الْجَاهِلِينَ
“আর ক্ষমা করার অভ্যাস গড়ে তোল, সৎকাজের নির্দেশ দাও এবং মূর্খ-জাহেলদের থেকে দূরে সরে থাক।” (সূরা আরাফ: ১৯৯)

আল্লাহ তাআলা আরও বলেন,
فَاصْفَحْ عَنْهُمْ وَقُلْ سَلَامٌ ۚ فَسَوْفَ يَعْلَمُونَ

“অতএব, আপনি তাদের অন্যায় আচরণকে এড়িয়ে চলুন এবং বলুন, ‘সালাম’ (শান্তিময় কথা) বলুন। তারা শীঘ্রই জানতে পারবে।” (সূরা যুখরুফ: ৮৯)

মনে রাখবেন, যারা অন্যায় ও কষ্টদায়ক আচরণ ও কথার মাধ্যমে মানুষকে কষ্ট দেয় তারা নি:সন্দেহে অপরাধী ও গুনাহগার। আপনি যথাসাধ্য তাদের নিকট আল্লাহর দীনের দাওয়াত পৌঁছিয়ে দেয়ার চেষ্টা করবেন এবং তাদের হেদায়েত ও ক্ষমার জন্য আল্লাহর কাছে দুআ করবেন।
দীনের পথে আসার পরে শত বাজে মন্তব্য, কটু কথা ও অন্যায় সমালোচনার পরও দীনের উপর অবিচল থাকার কারণে ইনশাআল্লাহ আল্লাহর প্রিয়ভাজন মানুষে পরিণত হবেন, তিনি আপনার গুনাহ মোচন করবেন এবং আপনার আমলনামায় লিখবেন অবারিত সওয়াব।
আল্লাহ তাআলা জাহেলদেরকে হেদায়েত ও দীনের সঠিক জ্ঞান দান করুন এবং প্রত্যেক ঈমানদার ব্যক্তিকে দীনের পথে আমরণ অবিচল রাখুন। আমিন।

-আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব।

Share On Social Media