কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

পিতা যদি তার মেয়েকে তার অনিচ্ছা স্বত্বেও ঘুস দিয়ে চাকুরী নিতে বাধ্য করে

প্রশ্ন: আমি একজন মেয়ে। আমার বাবা-মা আমার চাকরির interview এ ঘুস দিতে চায় যাতে চাকরি হয়। আমি নিষেধ করেছি। কিন্তু তারা রাজি নয়। তারা আমাকে শিক্ষকতা পেশায় যেভাবে হোক ঢুকাতে চায়। আমি আবার ব্যবসা বুঝি না। এখন বাবার কথা শুনে রাজি হয়ে এভাবে ঘুস দিয়ে চাকরি নিলে তা কি আমার জন্য হালাল হবে? এখন আমার করণীয় কি?

উত্তর:

আমাদের অজানা নয় যে, ইসলামের দৃষ্টিতে ঘুস দেয়া ও নেয়া উভয়টি কবিরা গুনাহ ও অভিসম্পাত যোগ্য কাজ এমনকি সামাজিক দৃষ্টিতেও অপরাধ।
➤ ইবনে উমর রা. হতে বর্ণিত। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:
الراشي والمرتشي كلاهما في النار
“ঘুষ দাতা ও ঘুষ গ্রহীতা উভয়ই জাহান্নামী।” (তিরমিযী হা/১৩৩৭, ত্ববারানী, ইবনে হিব্বান, সনদ সহীহ)
➤ তিনি আরও বলেন:
لعَن اللهُ الرَّاشيَ والمُرتشيَ
“ঘুষ দাতা ও ঘুষ গ্রহীতা উভয়ের উপর আল্লাহ অভিসম্পাত করেছেন।” (ইবনে হিব্বান, সহীহুল জামে হা/৫০৯৩-আলবানী)
এ মর্মে আরও হাদিস আছে।

মোটকথা ঘুস দিয়ে চাকুরী নেয়া চরম অন্যায় ও বড় গুনাহ। এ থেকে বেঁচে থাকা আবশ্যক।
পিতার জন্য বৈধ নয় ঘুস দিয়ে তার মেয়ের জন্য চাকুরী নেয়া। আর মেয়ের জন্যও বৈধ নয় তাতে সম্মতি দেয়া।

সুতরাং মেয়ে যেন ঘুস দিয়ে চাকুরী নেয়ার ব্যাপারে মোটেও সম্মতি না দেয়। তবে পিতা যদি মেয়ের নিষেধ স্বত্বেও ঘুস দেয় তাহলে যথাসম্ভব চাকুরী করা থেকে বিরত থাকবে। কিন্তু এতে যদি সে পিতামাতার পক্ষ থেকে অত্যাচারের শিকার হওয়ার আশংকা করে তাহলে মনে ঘৃণা বোধ জাগ্রত রেখে চাকুরীতে যুক্ত হতে পারে। তৎসঙ্গে অন্য কোথাও হালাল কর্মসংস্থানের জন্য মহান আল্লাহর নিকট দুআ করবে এবং সে জন্য চেষ্টা অব্যহত রাখবে।

➤ যে ব্যক্তি আল্লাহকে ভয় করে নিশ্চয় মহান আল্লাহ তার জন্য অকল্পনাতীতভাবে হালাল জীবিকার ব্যবস্থা করেন। আল্লাহ তাআলা বলেন:
وَيَرْزُقْهُ مِنْ حَيْثُ لَا يَحْتَسِبُ ۚ وَمَن يَتَوَكَّلْ عَلَى اللَّـهِ فَهُوَ حَسْبُهُ ۚ إِنَّ اللَّـهَ بَالِغُ أَمْرِهِ ۚ قَدْ جَعَلَ اللَّـهُ لِكُلِّ شَيْءٍ قَدْرًا
“আর যে আল্লাহকে ভয় করে, আল্লাহ তার জন্যে নিষ্কৃতির পথ করে দেবেন এবং তাকে তার ধারণাতীত জায়গা থেকে রিজিক দেবেন। যে ব্যক্তি আল্লাহর উপর ভরসা করে তার জন্যে তিনিই যথেষ্ট। আল্লাহ তার কাজ পূর্ণ করবেন। আল্লাহ সবকিছুর জন্যে একটি পরিমাণ স্থির করে রেখেছেন।” (সূরা তালাক/২ ও ৩)

আল্লাহ তাআলা আমাদের হালাল কর্মসংস্থান এর ব্যবস্থা করুন এবং সব ধরণের হারাম থেকে হেফাজত করুন। আমীন।
▬▬▬▬❖💸❖▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post