কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

জায়নামাজ, কার্পেট ইত্যাদির উপর সালাত আদায় এবং সেজদার স্থানে অতিরিক্ত কাপড় বা অন্য কোন বস্তু রেখে তার উপর সেজদা দেয়া

প্রশ্ন: জায়নামাজ, কার্পেট ইত্যাদির উপর সালাত আদায় করার বিধান কি? এবং এমন কোনও হাদিস আছে কি যে, জায়নামাজের উপরই সেজদা দিতে হবে? যদি সেজদায় হিজাব বা ওড়না সামনে চলে যায় আর সেটার ওপর সেজদা দেয়া হয় তবে কি তা শুদ্ধ হবে?

উত্তর:
পবিত্র মাটির উপর অথবা কোন মাদুর, চাটাই, কার্পেট, কাপড় বা জায়নামায ইত্যাদির উপর সালাত আদায় করা বৈধ। কেননা হাদিসে বর্ণিত হয়েছে:
عَنْ اَبِىْ سَعِيدٍ الْخُدْرِيِّ قَالَ دَخَلْتُ عَلَى النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَرَأَيْتُه يُصَلِّي عَلى حَصِيرٍ يَسْجُدُ عَلَيْهِ قَالَ وَرَأَيْتُه يُصَلِّي فِي ثَوْبٍ وَاحِدٍ مُتَوَشِّحًا بِه. رَوَاهُ مُسْلِمٌ

আবূ সা‘ঈদ আল্ খুদরী রা. হতে বর্ণিত তিনি বলেন, আমি নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর খেদমতে উপস্থিত হলাম। দেখলাম, তিনি একটি মাদুরের উপর সলাত আদায় করছেন, তার উপরই সেজদা দিচ্ছেন। [মুসলিম, মিশকাতুল মাসাবীহ,
হাদিস নম্বরঃ [768] অধ্যায়ঃ পর্ব-৪, সলাত (كتاب الصلاة) হাদিস একাডেমী]

অন্য হাদিসে বর্ণিত হয়েছে,
مَيْمُونَةُ، زَوْجُ النَّبِيِّ صلى الله عليه وسلم قَالَتْ كَانَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم يُصَلِّي وَأَنَا حِذَاءَهُ وَرُبَّمَا أَصَابَنِي ثَوْبُهُ إِذَا سَجَدَ وَكَانَ يُصَلِّي عَلَى خُمْرَةٍ
নাবী (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) – এর স্ত্রী মায়মূনাহ্‌ রা. থেকে বর্ণিত:
তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম সলাত আদায় করতেন আর আমি তাঁর পাশেই থাকতাম। তিনি সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন সেজদা করতেন তখন কোন কোন সময় তাঁর কাপড় আমার শরীর স্পর্শ করত। আর তিনি সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম চাটাইয়ের উপর সলাত আদায় করতেন। (সহীহ মুসলিম, হা নং ১৩৯০, অধ্যায়: জামা’আতে নফল সলাত এবং চাটাই, মুসল্লা ও কাপড় ইত্যাদি পবিত্র বস্তুর উপর সলাত আদায় জায়েয)

মোটকথা, সরাসরি মাটি, কার্পেট, মাদুর, চাড়াই বা কাপড় বিছিয়ে সালাত আদায় করতে কোন আপত্তি নাই।ইনশাআল্লাহ।

💠 *সেজদার স্থানে বিনা প্রয়োজনে অতিরিক্ত কাপড় বা অন্য কোন কিছু দেয়া ঠিক নয়:*

সেজদা দেয়ার সময় বিনা প্রয়োজনে কপাল ও সেজদার স্থানের মাঝে আলাদাভাবে পাগড়ি, কাপড়, হিজাব, ওড়না ইত্যাদি দ্বারা প্রতিবন্ধকতা রাখা উচিৎ নয়। তবে যদি এমন হয় যে, সেজদার স্থানটি অতিরিক্ত গরম হওয়ার কারণে বা সেখানে কাটা, পাথর, ইটের খোয়া বা এমন কিছু থাকার কারণে সেজদা দিতে কষ্ট হয় তাহলে তখন সেজদার স্থানে কোন কাপড় বা কোন কিছু রেখে তার উপর সেজদা দেয়া জায়েয।
যেমন হাদিসে বর্ণিত হয়েছে।
আনাস ইবনে মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন:
، قَالَ كُنَّا نُصَلِّي مَعَ رَسُولِ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم فِي شِدَّةِ الْحَرِّ فَإِذَا لَمْ يَسْتَطِعْ أَحَدُنَا أَنْ يُمَكِّنَ جَبْهَتَهُ مِنَ الأَرْضِ بَسَطَ ثَوْبَهُ فَسَجَدَ عَلَيْهِ
“প্রচণ্ড গরমের সময়ও আমরা রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর সাথে (যোহরের) সলাত আদায় করতাম। আমাদের কেউ যখন (গরমের প্রচণ্ডতার কারণে সেজদার সময়) কপাল মাটিতে রাখতে করতে পারত না তখন সে কাপড় বিছিয়ে তার উপর সেজদা করত। (সহীহ মুসলিম, অধ্যায়: মসজিদ ও সালাতের স্থানসমূহ, পরিচ্ছেদ: প্রচণ্ড রোদ না হলে যোহরের সলাত আও্ওয়াল ওয়াক্তে (প্রথম সময়) আদায় করা মস্তাহাব, হা/১২৯৪)

সুতরাং অসতর্কতার কারণে সেজদার স্থানে পাগড়ি, টুপি, হিজাব, ওড়না ইত্যাদি কোন কিছু চলে গেলেও সালাত বিশুদ্ধ হবে ইনশাআল্লাহ। তবে তা তৎক্ষণাৎ সরিয়ে ফেলতে হবে। আল্লাহু আলাম।
▬▬▬ ◈◉◈▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল মাদানী
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, KSA

Share This Post