জাহান্নামের উপত্যকার নাম ও সংখ্যা

প্রশ্ন: জাহান্নামের তিনটি উপত্যকা সম্পর্কে রেফারেন্স সহ জানতে চাই।
উত্তর: জাহান্নামের উপত্যকার নাম ও সংখ্যা সংক্রান্ত কোনও হাদিস সহিহ নয়। বরং সবগুলোই জইফ বা দুর্বল। এ সকল জইফ (দুর্বল) হাদিসে জাহান্নামের তিনটি উপত্যকার নাম পাওয়া যায়। সেগুলা হল, হাবহাব, ওয়েল, জুব্বুল হাযান। কিন্তু বিষয়টি যেহেতু ইলমে গায়েব বা অদৃশ্য বিষয়ের অন্তর্ভুক্ত তাই কুরআন ও বিশুদ্ধ সূত্রে প্রমাণিত হাদিস ব্যতিরেকে এ বিষয়ে কথা বলা সঙ্গত নয়।

নিম্নে উক্ত তিনটি উপত্যকা প্রসঙ্গে বর্ণিত হাদিস এবং সেগুলোর ব্যাপারে মুহাদ্দিসগণের অভিমত উল্লেখ করা হলো:

◈ ১ম: হাবহাব

إنَّ في جهنَّمَ واديًا يُقالُ له: هَبْهَبٌ، حقًّا على اللهِ أنْ يُسكِنَه كلَّ جبَّارٍ

“জাহান্নামের একটি উপত্যকা রয়েছে তাকে বলা হয়, হাবহাব। আল্লাহর কর্তব্য হচ্ছে এই যে, তিনি তাতে প্রত্যেক একগুঁয়ে অত্যাচারী শাসককে সেখানে স্থান দিবেন।”

[হাদীসটি উকায়লী “আযযুয়াফা” গ্রন্থে (৪৯), ইবনে লাল তার “হাদীস” গ্রন্থে (১/১২৩), ইবনে আদী “আল-কামেল” গ্রন্থে (১/৪২০), হাকিম (৪/৫৯৬), ইবনে আসাকির (৫/৫৮/১), আবু ইয়ালা ও ত্ববারানী আযহার ইবনে সিনান সূত্রে মুহাম্মাদ ইবনে আসে’ হতে, তিনি আবু বুরদাহ ইবনে আবু মুসা হতে মারফু হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

❂ এ হাদিসটি জইফ (দুর্বল)। [সিলসিলা যাইফা, হা/১১৮১-আলবানি]

➧ হাদিস বিশারদগণের দৃষ্টিতে হাদিসটি জইফ হওয়ার কারণ নিম্নরূপ:

هو حديث ضعيف، فمداره على أزهر بن سنان القرشي ، وهو ضعيف
قال ابن معين في “ميزان الاعتدال” (1/ 172) : ” ليس بشيء “.
وَقَال أبو جعفر العقيلي: ” في حديثه وهم “. وينظر: “تهذيب الكمال” (2/ 327).
وقال أبو داود: ” ليس بشيء ” . “الجامع في الجرح والتعديل” (1/ 56).
وقال الهيثمي في “مجمع الزوائد” (10 /396) : فيه أزهر بن سنان وهو ضعيف.‏‏
وقد ضعف الحديث الألباني في “السلسلة الضعيفة” (1181)
——————-
◈ ২য়: জুব্বুল হাযান

আবু হুরাইরা রা. হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,

‏”‏ تَعَوَّذُوا بِاللَّهِ مِنْ جُبِّ الْحُزْنِ ‏”‏ ‏.‏ قَالُوا يَا رَسُولَ اللَّهِ وَمَا جُبُّ الْحُزْنِ قَالَ ‏”‏ وَادٍ فِي جَهَنَّمَ تَتَعَوَّذُ مِنْهُ جَهَنَّمُ كُلَّ يَوْمٍ مِائَةَ مَرَّةٍ ‏”‏ ‏.‏ قُلْنَا يَا رَسُولَ اللَّهِ وَمَنْ يَدْخُلُهُ قَالَ ‏”‏ الْقُرَّاءُ الْمُرَاءُونَ بِأَعْمَالِهِمْ ‏”‏

“তোমরা জুবুল হাযান হতে আল্লাহ তাআলার নিকটে আশ্রয় প্রার্থনা কর। তারা প্রশ্ন করলেন, ইয়া রসুলাল্লাহ, জুব্বুল হাযান কী?
তিনি বললেন, তা জাহান্নামের মধ্যকার একটি উপত্যকা-যা থেকে স্বয়ং জাহান্নামও দৈনিক শতবার আশ্রয় প্রার্থনা করে।
প্রশ্ন করা হল, হে আল্লাহর রসুল, তাতে কে প্রবেশ করবে?
তিনি বললেন, যেসব কুরআন পাঠক লোক দেখানো আমল করে।”
[তিরমিজি, হা/২৩৮৩, ইবনে মাজাহ, হা/২৫৬]

❂ এ হাদিসটিও জইফ (দুর্বল)। [যইফুল জামে, হা/২৪৬০-আলবানি]

➧ হাদিস বিশারদগণের দৃষ্টিতে হাদিসটি জইফ হওয়ার কারণ নিম্নরূপ:

هو حديث ضعيف ، فيه عمار بن سيف الضبي ، متروك الحديث
قال البخارى : لا يتابع ، منكر الحديث ، ذاهب . وقال الدارقطنى : كوفى متروك .
وينظر : “تهذيب التهذيب” (7 / 403).
كما فيه أبو معان أو أبو معاذ البصري، قال الحافظ ابن حجر في “التقريب” (8375): مجهول.
وضعف الحديث الألباني في “ضعيف الجامع” (2460).
—————–
◈ ৩য়: ওয়াইল

আবু সাঈদ রা. থেকে বর্ণিত যে, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন,

الْوَيْلُ وَادٍ فِي جَهَنَّمَ يَهْوِي فِيهِ الْكَافِرُ أَرْبَعِينَ خَرِيفًا قَبْلَ أَنْ يَبْلُغَ قَعْرَهُ

“ওয়াইল হল, জাহান্নামের একটি উপত্যকা। এর তলদেশে পৌঁছার আগ পর্যন্ত কাফির চল্লিশ বছর নীচের দিকে যেতে থাকবে।”

[তিরমিজি, হা/ ৩১৬৪ [আল মাদানি প্রকাশনী], তা’লীকুর রাগীব ৪/২২৯]

❂ এ হাদিসটিও জইফ (দুর্বল)। [ যইফ তিরমিজি, হা/৩১৬৪-শাইখ আলবানি]

➧ হাদিস বিশারদগণের দৃষ্টিতে হাদিসটি জইফ হওয়ার কারণ নিম্নরূপ:

أخرجه الحاكم في “المستدرك” عن أبي سعيد مرفوعًا (3873) وموقوفًا (3972)، وقال: هذا حديث صحيح الإسناد ولم يخرجاه “. وقال الذهبي في “التلخيص”: صحيح .
والصواب: أنه حديث ضعيف مرفوعًا وموقوفًا ، فمداره على دراج أبي السمح، عن أبي الهيثم…
ودراج أبو السمح ؛ ضعفه أكثر المحدثين :
قال أبو حاتم : في حديثه ضعف .
و قال النسائى : ليس بالقوى . وقال في موضع آخر: منكر الحديث .
وقال الدارقطنى : ضعيف .
وقال في موضع آخر : متروك .
وحكى ابن عدى ، عن أحمد بن حنبل : أحاديث دراج ، عن أبى الهيثم ، عن أبى سعيد :
فيها ضعف .
وينظر: “تهذيب التهذيب” (3/ 209).
كما أن في إسناد أحمد والترمذي : ابن لهيعة ، وهو ضعيف الحديث، اختلط بأخرة.
ولذلك ضعفه الألباني في “ضعيف الترمذي” (3164)، وقال الأرناؤوط في “تخريج شرح السنة” (4409) : إسناده ضعيف.
তথ্যসূত্র: islamqa.info
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬▬✿◈✿▬▬▬▬
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল।
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।

Share On Social Media