কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

গান-বাজনা ও নানা পাপাচার সংঘটিত হয় এমন অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের বিধান

প্রশ্ন: বিধর্মী দেশগুলোতে আমাদের যে সকল প্রবাসী মুসলিমগণ বসবাস করে তাদের অধিকাংশই বিধর্মীদের কালচার ফলো করে। তারা নানা ধরণের গান-বাজনা, বেহায়াপনা পূর্ণ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এখন তারা যদি আমাকে তাদের এ সব অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের জন্য দাওয়াত দেয় তাহলে কি আমার সেখানে যাওয়া উচিৎ যদি আমি গানবাজনা, ছবি তোলা বা হারাম কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ না করি?
উল্লেখ্য যে, পরিস্থিতির কারণে তাদের থেকে দূরে থাকাও সম্ভব নয়। আবার অংশ গ্রহণ না করলেও তাদের নানা ক্রিটিসাইজ মূলক কথা শুনতে হয়। এ ক্ষেত্রে আমি কিভাবে পরিস্থিতিটা হ্যান্ডল করতে পারি দয়া করে জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর:

যে সব অনুষ্ঠানে নাচ, গান, বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার এবং অন্যান্য পাপাচার সংঘটিত হয় সেখানে আল্লাহকে ভয়কারী এবং জাহান্নাম থেকে মুক্তিকামী কোন ঈমানদারের যাওয়া উচিৎ নয়। শরীয়ত সম্মত কারণ ও দাওয়াতী স্বার্থ ছাড়া তাদের সাথে উঠবস করা হলে এই আয়াতের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে। আল্লাহ বলেন:
وَإِذَا رَأَيْتَ الَّذِينَ يَخُوضُونَ فِي آيَاتِنَا فَأَعْرِضْ عَنْهُمْ حَتَّىٰ يَخُوضُوا فِي حَدِيثٍ غَيْرِهِ ۚ وَإِمَّا يُنسِيَنَّكَ الشَّيْطَانُ فَلَا تَقْعُدْ بَعْدَ الذِّكْرَىٰ مَعَ الْقَوْمِ الظَّالِمِينَ
*“যখন আপনি তাদেরকে দেখেন, যারা আমার আয়াত সমূহে ছিদ্রান্বেষণ করে, তখন তাদের কাছ থেকে সরে যান যে পর্যন্ত তারা অন্য কথায় প্রবৃত্ত না হয়, যদি শয়তান আপনাকে ভুলিয়ে দেয় তবে স্মরণ হওয়ার পর জালেমদের সাথে উপবেশন করবেন না।”* (সূরা আনআম: ৬৮)
হাসান রহ. বলেন: لا تجالسوا أهل الأهواء ولا تجادلوهم ولا تسمعوا منهم. رواه اللالكائي
“প্রবৃত্তির অনুসারীদের সাথে উঠবস করো না, তাদের সাথে বিতর্ক করো না এবং তাদের কথা শুনিও না।” (লালকাঈ)
সত্যিকার অর্থে বর্তমান সমাজে বিশেষ করে অমুসলিম দেশে অথবা যে সকল মুসলিম দেশে ইসলামী বিধিবিধান বাস্তবায়ন করা হয় না সে সব স্থানে ইসলাম অনুযায়ী চলতে হলে স্রোতের বিপরীতে পথ চলতে হয়। অবশ্য কেউ যদি সত্যিকারভাবে ইসলাম অনুযায়ী চলতে চায় আল্লাহ তার জন্য চলা সহজ করে দেন।
আপনি যদি প্রবৃত্তির অনুসারীদেরকে খুশি রাখতে গিয়ে যদি মহান স্রষ্টা আল্লাহ তাআলার অসন্তুষ্টি কুড়ান তাহলে এর চেয়ে বড় ক্ষতি আর কী আছে?
তাই বলব, আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে আপনি ওই সকল পাপাচার মূলক অনুষ্ঠান থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখুন, এগুলোর প্রতি অনাগ্রহ প্রকাশ করুন, এ ক্ষেত্রে দৃঢ় মনোভাব পোষণ করুন এবং আল্লাহর নিকট সাহায্য চান তাহলে দেখবেন এক সময় তারাও আপনাকে আর তাদের এসব অনুষ্ঠানে আহ্বান করবে না।
তবে তাদের অন্যান্য পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগদান করুন, নিজেও তাদেরকে দাওয়াত দিন, সুখে-দুখে তাদের পাশে থাকুন, খোঁজ-খবর নিন, তাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করুন এবং বিভিন্নভাবে তাদেরকে সহযোগিতা করুন। সেই সাথে যথাসাধ্য তাদেরকে সালাত, সিয়াম ও অন্যান্য ইসলামী বিধিবিধান মেনে চলা এবং গান-বাজনা, বেপর্দা চলাফেরা, ফ্রি মিক্সিং, এলকোহল গ্রহণ ও পাপাচার ইত্যাদি থেকে দূরে ব্যাপারে দাওয়াতি কাজ করার চেষ্টা করুন।

নিজে ইসলাম সম্পর্কে জ্ঞানার্জন করুন, বিভিন্ন ইসলামী প্রোগ্রামে অংশ গ্রহণ করুন এবং তাদেরও অংশ গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করুন। তাহলে ইনশাআল্লাহ নিজে যেমন অন্যায় ও পাপাচার থেকে রক্ষা পাবেন তেমনি অন্যদেরকেও ইসলামের রাস্তায় দাওয়াত দেয়ার কারণে বিশাল সওয়াবের অধিকারী হবেন ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ তাওফিক দানকারী।
▬▬▬▬✪✪✪▬▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post