কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

খারাপ স্বপ্ন দেখলে কী করণীয়?

উত্তর:
খারাপ স্বপ্ন দেখলে কী কী করণীয় হাদীসের আলোকে সেগুলো নিম্নে তুলে ধরা হল:
■ ১. বামপাশে তিনবার থুথু নিক্ষেপ করা
■ ২. আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা (তথা ‘আউযুবিল্লাহি মিনাশ শায়তানির রাজীম’) পাঠ করা:

আবু কাতাদাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

الرُّؤْيَا الصَّالِحَةُ مِنَ اللَّهِ، وَالحُلُمُ مِنَ الشَّيْطَانِ، فَإِذَا حَلَمَ أَحَدُكُمْ حُلُمًا يَخَافُهُ فَلْيَبْصُقْ عَنْ يَسَارِهِ، وَلْيَتَعَوَّذْ بِاللَّهِ مِنْ شَر فَإِنَّهَا لاَ تَضُرُّهُ

“ভালো স্বপ্ন আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে হয়ে থাকে আর খারাপ স্বপ্ন হয় শয়তানের পক্ষ থেকে। সুতরাং কেউ যদি ভীতিকর দু:স্বপ্ন দেখে তাহলে সে যেন বাম পাশে থুথু নিক্ষেপ করে এবং আল্লাহর নিকট শয়তানের অনিষ্ট থেকে আশ্রয় চায়। তাহলে শয়তান এই দু:স্বপ্ন তার কোন ক্ষতি করবে না।” (বুখারী ও মুসলিম)

■ ৩) পার্শ্ব পরিবর্তন করা:
জাবের রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

إِذَا رَأَى أَحَدُكُمُ الرُّؤْيَا يَكْرَهُهَا، فَلْيَبْصُقْ عَنْ يَسَارِهِ ثَلَاثًا وَلْيَسْتَعِذْ بِاللهِ مِنَ الشَّيْطَانِ ثَلَاثًا، وَلْيَتَحَوَّلْ عَنْ جَنْبِهِ الَّذِي كَانَ عَلَيْهِ

“যদি তোমাদের কেউ এমন স্বপ্ন দেখে যা সে পছন্দ করে না, তাহলে তিনবার বাম দিকে থুথু দেবে। আর তিন বার শয়তান থেকে আল্লাহ তাআলার কাছে আশ্রয় চাবে (অর্থাৎ আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানির রাজীম পাঠ করবে।) আর যে পার্শ্বে শুয়েছিল, তা পরিবর্তন করবে। (অর্থাৎ পার্শ্ব পরিবর্তন করে শুবে)।”

■ ৪) ঘুম থেকে উঠে সালাত আদায় করা:

আবূ হুরায়রা রা. হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন:

فَإِنْ رَأَى أَحَدُكُمْ مَا يَكْرَهُ فَلْيَقُمْ فَلْيُصَلِّ وَلاَ يُحَدِّثْ بِهَا النَّاسَ

“তোমাদের কেউ যদি অপছন্দনীয় কিছু স্বপ্ন দেখে তাহলে সে যেন উঠে সলাত আদায় করে আর মানুষের নিকট সে (স্বপ্নের) কথা গোপন রাখে।” (সহীহ মুসলিম, হাদিস নম্বরঃ [5798] অধ্যায়ঃ (كتاب الرؤيا), হাদিস একাডেমি)

■ ৫. খারাপ স্বপ্নের কথা কাউকে না বলা:

আবু সাঈদ খুদরী রা. হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন,

إِذَا رَأَى أَحَدُكُمُ الرُّؤْيَا يُحِبُّهَا، فَإِنَّمَا هِيَ مِنَ اللَّهِ فَلْيَحْمَدِ اللَّهَ عَلَيْهَا، وَلْيُحَدِّثْ بِهَا، فَإِذَا رَأَى غَيْرَ ذَلِكَ مِمَّا يَكْرَهُ فَإِنَّمَا هِيَ مِنَ الشَّيْطَانِ، فَلْيَسْتَعِذْ بِاللَّهِ مِنْ شَرِّهَا، وَلَا يَذْكُرُهَا لِأَحَدٍ فَإِنَّهَا لَا تَضُرُّهُ

“যখন কেউ ভাল স্বপ্ন দেখে-যা সে পছন্দ করে-তাহলে তা আল্লাহর পক্ষ থেকে। সুতরাং সে যেন এ ব্যাপারে আল্লাহর প্রশংসা করে (অর্থাৎ আল হামদু লিল্লাহ পাঠ করে) এবং তা মানুষকে বলে। আর যদি অন্য কিছু দেখে-যা সে অপছন্দ করে-তাহলে তা শয়তানের পক্ষ থেকে। সুতরাং সে যেন এর অনিষ্ট থেকে আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করে এবং এটি কারো নিকট আলোচনা না করে। তাহলে তা তার কোন ক্ষতি করবে না।” (সহীহ বুখারী (6985 ও 7045 নং হাদীসমুসনাদ আহমদ, তিরমিযী, নাসাঈ, হাকিম)

উপরোক্ত হাদীস সমূহের আলোকে খারাপ স্বপ্ন দেখলে যা করতে হবে সেগুলো হল:

🔰 এক. শয়তানের অনিষ্ট ও কুমন্ত্রণা থেকে আল্লাহর আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে এবং এর জন্য তিনবার আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানির রাজীম পড়তে হবে। কারণ, খারাপ স্বপ্ন শয়তানের কুপ্রভাবে হয়ে থাকে।
🔰 দুই. বাঁ দিকে তিনবার থুথু নিক্ষেপ করতে হবে। এটা করতে হবে শয়তানের প্রতি ঘৃণা প্রকাশ ও তার চক্রান্তকে অপমান করার জন্য ।
🔰 তিন. যে পাশে ঘুমিয়ে খারাপ স্বপ্ন দেখেছে তা পরিবর্তন করে অন্য পাশে শুতে হবে। অবস্থা বদলে দেয়ার ইঙ্গিত স্বরূপ এটা করা হয়ে থাকে।
🔰 চার. ঘুম থেকে উঠে দু দু/চার রাকাআত সালাত আদায় করা।
🔰 পাঁচ. খারাপ স্বপ্ন দেখলে কারো কাছে বলবে না। আর নিজেও এর ব্যাখ্যা করতে চেষ্টা করবে না।
▰▰▰▰▰▰▰▰▰▰▰▰
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।।

Share This Post