কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

ওযু ছাড়া মুখস্থ কুরআন তিলাওয়াত, কুরআন তিলাওয়াতের অডিও শোনা ও মোবাইল এ্যাপ থেকে কুরআন পড়ার বিধান

প্রশ্ন: বিনা অযুতে শুয়ে কিংবা বসে মুখস্থ কুরআন তিলাওয়াত করা জায়েয? তাছাড়া কেউ যদি কোনো সূরা মুখস্ত করতে চায় তবে সেই সূরার অডিও বাজিয়ে শুয়ে শুয়ে অডিও এর তিলাওয়াতের সাথে কি তিলাওয়াত করতে পারবে বা মোবাইল অ্যাপে দেখে দেখে কি তিলাওয়াত করতে পারবে?

উত্তর:

 মুখস্থ কুরআন পড়ার জন্য ওযু থাকা জরুরি নয়। বরং ওযু ছাড়া আপনি শুয়ে, বসে, দাঁড়িয়ে, গাড়িতে বসে, কাজের ফাঁকে ফাঁকে যখন-যেভাবে খুশি মুখস্থ কুরআন পড়তে পারেন।
 অনুরূপভাবে অযু ব্যতিরেকে অডিও শুনা এবং তার সাথে সাথে উচ্চারণ করে মুখস্থ করা যাবে।
 মোবাইল এ্যাপ বা কম্পিউটার/ল্যাপটপ থেকে দেখে কুরআন পড়ার জন্যও ওযু থাকা আবশ্যক নয়।
 ওযু ছাড়া কুরআনের আয়াত ও হাদীস সম্বলিত বই-পুস্তক, তাফসীর গ্রন্থ, হাদীস গ্রন্থ ইত্যাদি ধরা এবং পড়ায় কোন বাঁধা নেই।
 ওযু না থাকলে অথবা ঋতুস্রাব জনিত নাপকী অবস্থায়ও দুআ, যিকির, তাসবীহ, ইস্তিগফার.. ইত্যাদি এমন কি কুরআনের সূরা ফাতিহা, নাস, ফালাক, ইখলাস, কাফিরূন, আয়াতুল কুরসী ইত্যাদি সূরা-আয়াতগুলো আযকার হিসেবে পড়ায় শরীয়তের দৃষ্টিতে আপত্তি নাই।

➤ জ্ঞাতব্য যে,
 স্বামী-স্ত্রীর মিলনের মাধ্যমে শরীর নাপাক হলে সর্ব সম্মতিক্রমে গোসল দ্বারা পবিত্র হওয়া পর্যন্ত কুরআন স্পর্শ করা, দেখে বা মুখস্থ পড়া জায়েয নয়।
 আর ঋতুস্রাব জনিত কারণে মহিলারা নাপাক হলে সে সময় কুরআন পড়া যাবে কি না সে বিষয়ে ওলামাদের মাঝে দ্বিমত রয়েছে। তাই সতর্কতা হিসেবে এ অবস্থায় একান্ত জরুরি দরকার ছাড়া না পড়াই উত্তম। খুব প্রয়োজন অনুভব করলে (যেমন, ভুলে যাওয়ার আশঙ্কা, শিক্ষকতা, কুরআন পরীক্ষা ইত্যাদি ক্ষেত্রে) পড়া যাবে তবে সরাসরি হাত দ্বারা কুরআন স্পর্শ না করে কাপড় বা পর্দার আবরণ সহকারে কুরআন স্পর্শ করা উচিৎ।
 সাধারণভাবে ওযু না থাকলে আবারণ ছাড়া সরাসরি কুরআন স্পর্শ করা ঠিক নয়-( দু রকম মতামতের মধ্যে এটি অধিক বিশুদ্ধ মত) তবে এ অবস্থায় মুখস্ত পড়া, অডিও শোনা, বা মোবাইল/ল্যাপটপ ইত্যাদি ডিভাইস থেকে দেখে কুরআন তিলাওয়াত করতে কোন বাধা নেই।

▬▬▬▬▬▬▬▬
উত্তর প্রদানে: আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সৌদি আরব।

Share This Post