আমাদের সমাজে আজরাইল নামটি কিভাবে প্রচলিত হল

উত্তর: আজরাইল (عزرائيل/Azrael) শব্দটি আরবি বরং ইবরানি (হিব্রু/Hebrew) ভাষা থেকে এসেছে। জান কবজের দায়িত্বে নিয়োজিত ফেরেশতাকে ইবরানি (হিব্রু) ভাষায় ‘আজরাইল/Azrael’ বলা হয়। বিভিন্ন ইসরাইলি বর্ণনায় এ শব্দটির উল্লেখ পাওয়া যায়। ইসলামি লেখকদের মধ্যে ফখরুদ্দিন রাযী, ইমাম বাগাভী প্রমুখ কতিপয় তাফসির কারক তাদের তাফসির গ্রন্থে এ নামটি ব্যবহার করেছেন। এ কারণে এ নামটি আমাদের সমাজে বিভিন্ন …

Read more

Share:

তুহিন নামের ব্যাপারে বিভ্রান্তি নিরসন

প্রশ্ন: তুহিন নামের অর্থ কী? অনেক হুজুর বলে যে, এটি আরবি ‘তাওহীন’ শব্দ থেকে পরিবর্তিত হয়ে ‘তুহিন’ হয়েছে। যার অর্থ: অপমানিত ও লাঞ্ছিত হওয়া। এ কথা কি সঠিক? ইসলামের দৃষ্টিতে এ নাম কি রাখা জায়েজ। উত্তর: আমাদের দেশে তুহিন নামটি ছেলেদের নাম হিসেবে যথেষ্ট জনপ্রিয়। তাই আমাদের জানা দরকার এ নামটি মুসলিমদের নামের ক্ষেত্রে ব্যবহারে …

Read more

Share:

আবুল আলা নামের ব্যাপারে সংশয় নিরসন

কিছু মানুষ ‘আবুল আলা’ নামটির ব্যাপারে আপত্তি করে থাকে। তারা বলে থাকে, “আলা আল্লাহর নাম। সুতরাং ‘আবুল আলা’ অর্থ হয়, আল্লাহর পিতা। (নাউযুবিল্লাহ)। সুতরাং ‘আবুল আলা’ না বলে ‘আব্দুল আলা’ (আল্লাহর বান্দা) বলতে হবে।” নিম্নে এই সংশয় নিরসন এবং এ বিষয়ে সঠিক বিশ্লেষণ উপস্থাপন করা হল: ‘আবুল আলা’ নামটি ভারত উপমহাদেশে বহুল প্রচলিত ও জনপ্রিয় …

Read more

Share:

আল্লাহর নাম সত্তার‌ প্রমাণিত না হওয়ায় আব্দুস সাত্তার নাম রাখা উচিত নয়

আমাদের সমাজে‌ আব্দুস সাত্তার নামটি সুপরিচিত। আমাদের সম্মানিত শায়েখ আব্দুর রাজ্জাক বিন ইউসুফ তার এক বক্তৃতায় বাচ্চাদের কেমন নাম রাখা উচিত সে বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে ‘আব্দুস সাত্তার’ নাম রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। (আল্লাহ শায়খের ভুল ত্রুটিগুলো মার্জনা করুন। আমিন) অথচ “সাত্তার” নামে আল্লাহর কোন নাম বিশুদ্ধ সূত্রে প্রমাণিত নয়। 🔸 এ ব্যাপারে বিজ্ঞ আলেমদের কয়েকটি …

Read more

Share:

শাহানশাহ/শাহেনশাহ নাম রাখা কি জায়েজ

প্রশ্ন: শাহানশাহ/শাহেনশাহ নাম রাখা কি জায়েজ?▬▬▬▬▬▬▬✿◈✿▬▬▬▬▬▬▬ উত্তর: শাহানশাহ শব্দের অর্থ হল, বাদশার বাদশা বা রাজাধিরাজ। আর এই গুণের অধিকারী একমাত্র আল্লাহ তাআলা।‌ তাই মানুষের ক্ষেত্রে শাহানশাহ বা শাহেনশাহ নাম রাখা বৈধ নয়। ◆ হাদিসে বিশেষভাবে এ নামটিকে নিকৃষ্ট নাম হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। যেমন: আবু হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত যে, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, …

Read more

Share:

নিজের নামের সাথে পিতার পরিবর্তে স্বামীর নাম যুক্ত করা এবং স্বামীর নামে পরিচয় দেয়া হারাম

প্রশ্ন: ইসলামের দৃষ্টিতে কোনও বিবাহিত নারীর সাথে স্বামীর নাম যুক্ত করা এবং স্বামীর পরিচয়ে পরিচিত হওয়ার বিধান কি? ইসলামের সঠি জ্ঞানের অভাব বা অন্য কোনও কারণে যদি কোনো নারীর নামের সাথে তার স্বামীর নাম যুক্ত হয়ে যায় এবং জাতীয় পরিচয় পত্র সহ সকল সরকারী-বেসরকারি কাগজপত্রে সেই নাম উল্লেখ থাকে-যা পরিবর্তন করা প্রায় অসম্ভব। তাহলে সে …

Read more

Share:

পুরুষের নাম রাহিম এবং মহিলার নাম রাহিমা রাখা কি জায়েজ

প্রশ্ন: পুরুষের নাম ‘রাহিম’ এবং মহিলার নাম ‘রাহিমা’ রাখা কি জায়েজ? উত্তর: মহান আল্লাহর অন্যতম একটি সুন্দর নাম হল, الرحيم “আর রাহীম’ (পরম দয়ালু)। কিন্তু এটি এমন একটি নাম যা আল্লাহ এবং বান্দা উভয়ের জন্য প্রযোজ্য। কুরআনে আল্লাহ তাআলা নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে রঊফ (স্নেহপরায়ণ ও মমতাময়) এবং রাহিম (দয়ালু, দয়াময়) শব্দ দ্বারা …

Read more

Share:

আমি জানতে চাই, বিন/ইবনে এবং বিনত দ্বারা কী বুঝায়

প্রশ্ন: আমি জানতে চাই, বিন/ইবনে এবং বিনত দ্বারা কী বুঝায়? উত্তর: ▪ ইবন/ইবনে ও বিন অর্থ ছেলে। যেমন: 🔹 মুহাম্মদ বিন আব্দিল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) অর্থ: আব্দুল্লাহর ছেলে মুহাম্মদ 🔹 যায়েদ বিন হারিসা রা. অর্থ: হারিসার ছেলে যায়েদ। 🔹 আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রা. অর্থ: আব্বাসের ছেলে আব্দুল্লাহ রা. 🔹ওজায়ের ইবনে আবি বকর অর্থ: আবু …

Read more

Share:

কোন মানুষের নাম ‘রাব্বি’ রাখা যাবে কি?

প্রশ্ন: কোন মানুষের নাম ‘রাব্বি’ রাখা যাবে কি? উত্তর: আরবি ভাষা অনুযায়ী ‘রাব্বি’ শব্দটির অর্থ: আমার আমার নেতা, আমার সরদার, আমার মালিক, আমার প্রতিপালক ইত্যাদি। আর হিব্রু ভাষা অনুযায়ী ‘রাব্বি’ অর্থ: গুরু, নেতা, সরদার শিক্ষক। ইহুদিরা তাদের ধর্মজাযককে ‘রাব্বি’ (গুরু) বলে সম্বোধন করে থাকে। (উইকিপিডিয়া) أما اللقب الأكثر انتشارا لدى اليهود وباللغة العبرية فهو رب …

Read more

Share:

মেয়েদের নাম ‘জান্নাত’ রাখা যাবে কি?

প্রশ্ন: মেয়েদের নাম ‘জান্নাত’ রাখা যাবে কি? ▬▬▬▬◈◉◈▬▬▬▬ উত্তর: সন্তানের সুন্দর ও অর্থবহ ইসলামি নাম রাখা পিতার একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, إِنّكُمْ تُدْعَوْنَ يَوْمَ الْقِيَامَةِ بِأَسْمَائِكُمْ، وَأَسْمَاءِ آبَائِكُمْ، فَأَحْسِنُوا أَسْمَاءَكُمْ “কিয়ামতের দিন তোমাদেরকে ডাকা হবে তোমাদের ও তোমাদের পিতার নাম নিয়ে। তাই তোমরা সুন্দর নাম রাখ।” [সুনানে আবু দাউদ, হাদিস/৪৯৪৮, …

Read more

Share: