কোরআন ও সহীহ সুন্নাহ ভিত্তিক প্রশ্নোত্তর প্রচার করাই হল এই ওয়েবসাইটের মূল উদ্দেশ্য।।

কোনও শিশু তার নানীর দুধ পান করলে তার জন্য তার মামাতো ভাই/বোনকে বিবাহ করা হারাম

প্রশ্ন: এক ছেলে শিশু তার মা মারা যাওয়ার কারণে নানীর দুধ পান করেছে। এখন প্রশ্ন হল, উক্ত ছেলেটির জন্য বড় হওয়ার পর তার মামাতো বোনকে বিবাহ করা বৈধ হবে কি?

উত্তর:
কোনও শিশু যদি দু বছরের বয়সের মধ্যে কমপক্ষে পাঁচবার কোন মহিলার দুধ পান করে তাহলে দুধ দানকারীনী মহিলা দুধ মা, তার স্বামী পিতা এবং তার সন্তানগণ তার দুধ ভাইবোন হিসেবে সাব্যস্ত হবে। এমনকি তাদের ঊর্ধ্বতন পুরুষ-নারীগণ (যত উপরেই যাক না কেন) এবং নিম্নস্তরের সন্তান-সন্ততিগণ (যত নিম্নস্তরেই যাক না কেন) তার জন্য মাহরাম হিসেবে সাব্যস্ত হবে। অর্থাৎ উপরোক্ত ব্যক্তিদের সাথে চিরতরে তার বিবাহ বন্ধন হারাম হয়ে যাবে এবং তাদের পরস্পরে পর্দা করা আবশ্যক নয়।
কেননা সহীহ বুখারীর বর্ণনায় এসেছে-
٢٦٤٥ -حَدَّثَنَا مُسْلِمُ بْنُ إِبْرَاهِيمَ، حَدَّثَنَا هَمَّامٌ، حَدَّثَنَا قَتَادَةُ، عَنْ جَابِرِ بْنِ زَيْدٍ، عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُمَا، قَالَ: قَالَ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فِي بِنْتِ حَمْزَةَ: «لاَ تَحِلُّ لِي، يَحْرُمُ مِنَ الرَّضَاعِ مَا يَحْرُمُ مِنَ النَّسَبِ، هِيَ بِنْتُ أَخِي مِنَ الرَّضَاعَةِ –

ইবনে আব্বাস (রা.) হযরত হামজা (রা.) এর কন্যাকে বিবাহের বিষয়ে রাসূল (সা.) কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, তাকে বিবাহ করা তোমার জন্য বৈধ না। কেননা দুধ পান করার দ্বারা যেমন বিবাহ হারাম হয়, তেমনি বংশের কারণেও হারাম হয়, আর হামজা (রা.) এর কন্যা তোমার দুধবোন। (বুখারী-৩/১৭০, হাদীস-২৬৪৫।)
অর্থাৎ বংশগত সম্পর্কের কারণে যা হারাম দুধ পান করার মাধ্যমেও তা হারাম হবে।

সুতরাং কোন সন্তান যদি নানীর দুধ পান করে থাকে তাহলে উক্ত নানীর ঊর্ধ্বতন পুরুষ-নারীগণ এবং তার নিম্নস্তরের পুরুষ-নারীগণ তার জন্য হারাম বলে সাব্যস্ত হবে। যেমন, নানীর ছেলে অর্থাৎ মামা, মামার সন্তানগণ, মামার সন্তানদেরদের সন্তানগণ….অনুরূপভাবে নানীর মেয়ে অর্থাৎ তার খালা..খালার সন্তানগণ..খালার সন্তানদের সন্তানগণ…..এভাবে নিচের দিকে যতদূর যাক।
আল্লাহু আলাম
▪▪▪▪▪▪▪▪
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল
জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব

Share This Post